ঢাকা, বুধবার   ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ২৭ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

বরিস জনসনের পার্লামেন্ট মুলতবির সিদ্ধান্ত বেআইনী ঘোষণা

লন্ডন প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৮:৫৬ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | আপডেট: ১৯:৫৮ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের পার্লামেন্ট মুলতবির সিদ্ধান্তকে বেআইনী বলে ঘোষণা করেছে স্কটল্যান্ডের হাইকোর্ট। সর্বদলীয় রাজনীতিবিদদের দায়ের করা এ পিটিশনের উপর শুনানী শেষে তিন সদস্যের বিচারক দল এ রায় দেন। 

আদালত বলেছে, ব্রেক্সিট বিষয়ে পার্লামেন্টের কাছে সরকারের জবাবদিহিতা বাঁধাগ্রস্থ করতে প্রধানমন্ত্রী চেষ্টা করেছেন এবং প্রধানমন্ত্রী রাণীকে ভুল বুঝিয়েছেন। সরকার এ বিষয়ে সুপ্রীম কোর্টে আপীল করবে বলে জানিয়েছে।এ রায় গত সপ্তাহে সরকারের পক্ষে যাওয়া রায়কে খারিজ করে দিয়েছে। গত সপ্তাহে সেশন কোর্ট পার্লামেন্ট মুলতবির সরকারের সিদ্ধান্তকে সঠিক বলে রায় দিয়েছিল।
 
ব্রেক্সিট কার্যকর প্রশ্নে একের পর এক পরাজয়ের মধ্যে হাইকোর্টের এ রায় প্রধানমন্ত্রীর জন্য আরেকটি বড় আঘাত বলে বিবেচনা করা হচ্ছে।এ রায়ের ফলে ধারণা করা হচ্ছে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী পুনরায় পার্লামেন্ট অধিবেশন ডাক দিতে পারেন। ইতিমধ্যে আগামী ১৪ অক্টোবর পর্যন্ত পার্লামেন্ট মুলতবি করা হয়েছে। অধিবেশন শুরু হলে নিয়ম অনুযায়ী রাণী ভাষণ দেবেন এবং এ ভাষণের উপর আলোচনা শুরু হবে।ফলে ব্রেক্সিট বাঁধাগ্রস্থ করতে বিরোধী এমপিরা তেমন বেশি সময় পাবেন না।এজন্যই মূলত বিরোধী দলগুলো সরকারী সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করেছেন। তবে এ রায়ের ফলে সরকারের অবস্থান আরও সঙ্গিন হয়ে পড়ল।

 ৭০ জন এমপি এবং লর্ড সভার সদস্য স্কটল্যান্ড হাইকোর্টে এ পিটিশন দায়ের করেছিলেন। তাদের মুখপাত্র স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টিও এমপি জোয়ানা চেরী আশা করছেন সরকার দ্রুতই পার্লামেন্ট অধিবেশন আহবান করবে। তিনি বলেন,আমরা মনে করি আমাদের দাবীর যথার্থতা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এবং আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাসী যে সুপ্রীম কোর্ট এ রায় বহাল রাখবে।
 
স্কটল্যান্ডের ফার্স্ট মিনিস্টার নিকোলা স্টারজিওন এই রায়কে সাংবিধানিকভাবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে উল্লেখ করে বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর আচরণ ভয়ানক, দায়িত্বজ্ঞানহীন এবং সাংবিধানিক নিয়ম-কানুনের চরম লঙ্ঘন।
শ্যাডো ব্রেক্সিট সেক্রেটারী স্যার কেয়ার স্টারমার বলেছেন, জনগণ বরিস জনসনকে বিশ্বাস করেনা।এখন কোর্ট যেহেতু তার সিদ্ধান্তকে বেআইনী ঘোষণা করেছে, এটি অত্যন্ত শক্তিশালী।
সাবেক এটর্নি জেনারেল বর্তমানে স্বতন্ত্র এমপি ডমিনিক গ্রিভ মনে করেন রাণীকে ভুলভাবে ব্যাখ্যা দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের দ্রুত পদত্যাগ করা উচিত। 
এদিকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ১০ ডাউনিং স্টিট থেকে বলা হয়েছে, এ রায় অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক এবং এ রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রীম কোর্টে আপীল করা হবে। পার্লামেন্ট মুলতবি করা আইনসম্মত।আগামী সোমবার সুপ্রীম কোর্টে এ রায়ে বিরুদ্ধে শুনানীর দিন ধার্য করা হয়েছে।
কেআই/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি