ঢাকা, শুক্রবার   ২২ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ৯ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক চালু করছে কোরিয়া-বাংলাদেশ ডেস্ক

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২৩:৫৫ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক একটি জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে “কোরিয়া-বাংলাদেশ করিডোর ডেস্ক” উদ্যোগটি চালু করেছে। এই ডেস্কটি একটি নিবেদিত দল দ্বারা পরিচালিত হবে এবং  বাংলাদেশের ব্যবসা ক্ষেত্রে কোরিয়ান উদ্যোক্তা এবং ব্যাবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলোকে সাহায্য করবে। 

এই অনুষ্ঠানে “ডুইং বিজনেস ইন বাংলাদেশ”নামে একটি নির্দেশিকা বই প্রকাশ করা হয় যা পাঠকদের জন্য ইংরেজি এবং কোরিয়ান ভাষায় প্রকাশিত হয়েছে। এই অনুষ্ঠানটির মাধ্যমে বাংলাদেশের নীতি নির্ধারক এবং নেতৃস্থানীয় ব্যবসায়ীদের সাথে কোরিয়ান কুটনীতিক এবং ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ একত্রিত হয়।

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড বিভিন্ন দেশ যেমন চীন এবং জাপান এর সাথে করিডোর তৈরির মাধ্যমে বাংলাদেশে বিদেশি বাণিজ্য এবং বিনিয়োগ এ নেতৃস্থানীয় ভুমিকা পালন করছে । স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড কোরিয়ান বিনিয়োগকারীদের অন্যান্য আন্তর্জাতিক ব্যাংকের তুলনায় বিস্তৃত নেটওয়ার্ক, পরিপূর্ণ ব্যাংকিং সুব্যাবস্থা, ডিজিটাল ব্যাংকিং, অর্থনীতিক ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা পণ্য, প্রকল্প অর্থায়ন এবং অন্যান্য আর্থিক সমাধান, রেগুলাটরি সাপর্ট এবং একইসাথে বাংলাদেশে ১১৪ বছর কাজ করার অভিজ্ঞতা থেকে বাংলাদেশ সম্পর্কে সম্যক ধারণা প্রদান করতেও সমর্থ। 

এই অনুষ্ঠানে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড, বাংলাদেশ-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নাসের এজাজ বিজয় বলেন,“যারা প্রথম দিকে বাংলাদেশে বিনিয়োগ করেছে দক্ষিণ কোরিয়া তাদের মধ্যে অন্যতম। বাংলাদেশের টেক্সটাইল এবং গার্মেন্টস ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে প্রধান হচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়া এবং বাংলাদেশে এই খাতে প্রায় এক চতুর্থাংশ বিনিয়োগ আসে তাদের থেকে। এ ছাড়াও তারা চামড়া এবং ব্যাংকিং ক্ষেত্রেও  উল্লেখযোগ্য বিনিয়োগ করছে। তাছাড়া দক্ষিণ কোরিয়ার বাংলাদেশের বিভিন্ন ক্ষেত্র যেমন- স্থাপনা, জাহাজ নির্মাণ, হালকা প্রকৌশলী এবং অন্যান্য ক্ষেত্রে সঠিক শর্তসাপেক্ষে বিনিয়গের সুযোগ রয়েছে”।

তিনি আরো বলেন, “দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের পরিস্থিতি একই রকম। ২০০০ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে  দক্ষিণ কোরিয়ায় মোট আমদানি প্রায় ৩ গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে, যখন বাংলাদেশ থেকে মোট আমদানি ১৫ গুন বৃদ্ধি পেয়েছে। যদিও আমাদের রপ্তানী সেখানে ঊর্ধ্বমুখী অবস্থায় তবুও এই রপ্তানী দক্ষিণ কোরিয়ায় মোট আমদানির মাত্র ০.০৬%। 

আমারা আশা করি যে, কোরিয়া-বাংলাদেশ করিডোর ডেস্কের মতো উদ্যোগ, কোরিয়া কেন্দ্রিক রপ্তানী প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চল স্থাপনা এবং ব্যবসা সহজীকরণ সহ সরকারের নানামুখী উদ্যোগগুলোর পাশাপাশি, এই দুই পুরনো বন্ধুত্বপূর্ণ দেশের মধ্যে নতুন সেতু তৈরি করতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে।"

উক্ত অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পরিকল্পনা মন্ত্রী মুহাম্মদ আব্দুল মান্নান। এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিআইডি এর নির্বাহী চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম,  পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ অফিসের সিইও মো.আলকামা সিদ্দিকী, বিইপিজিএ এর নির্বাহী চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল এস. এম. সালাহউদ্দিন ইসলাম, কেবিসিসিআই এর চেয়ারপার্সন মোস্তফা কামাল এবং কোট্রার উপ-পরিচালক জনাম জায় হো চ্যাং।
কেআই/
 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি