ঢাকা, শুক্রবার   ২৮ জানুয়ারি ২০২২, || মাঘ ১৫ ১৪২৮

রপ্তানি বাণিজ্যে চমক

তৌহিদুর রহমান

প্রকাশিত : ১৩:১৩, ৪ নভেম্বর ২০২১ | আপডেট: ১৩:১৪, ৪ নভেম্বর ২০২১

চমক দেখাচ্ছে রপ্তানি-বাণিজ্য। অর্থবছরের প্রথম চার মাসে আয় বেড়েছে ২২ দশমিক ৬২ শতাংশ। আর গেল অক্টোবরে প্রবৃদ্ধি ৬০ শতাংশের বেশি। গতিশীলতা অব্যাহত থাকলে লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাওয়ার আশা সংশ্লিষ্টদের।

করোনার ঝুঁকি সামলে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে রপ্তানি-বাণিজ্য। অর্থবছরের প্রথম চার মাসে পোশাক রপ্তানি বেড়েছে ২০ দশমিক ৭৮ শতাংশ।

বড় প্রবৃদ্ধি হয়েছে কৃষিপণ্য, হোম টেক্সটাইল, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য রপ্তানিতে। ভালো করেছে ওষুধ ও  প্রকৌশল খাতও।

অর্থনীতিবিদরা বলছেন, করোনার ধকল সামলে রপ্তানি খাতের এমন সাড়া খুবই ইতিবাচক। প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে পণ্য বহুমুখীকরণের পরামর্শ তাদের।  

অর্থনীতি অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, “টেকসই যদি আমরা করতে চাই তাহলে নজর দিতে হবে পণ্য বৈচিত্র্যকরণ এবং বাজার বৈচিত্র্যকরণের উপর। উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি করে প্রতিযোগিতামূলক সক্ষমতা বৃদ্ধির দিকে আমাদের চেষ্টা থাকতে হবে।”

বৈদেশিক-বাণিজ্য গতিশীল হওয়ায় খুশি রপ্তানিকারকরাও। তবে কাঁচামাল ও রপ্তানি-ব্যয় বাড়ায় খানিকটা অস্বস্তিতে তারা।

বিকেএমইএ নির্বাহী সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম বলেন, রপ্তানির গ্রোথ আরও বাড়বে, এই অর্থবছরের পুরোটাই রপ্তানির গ্রোথ বাড়বে। কিন্তু বাজারমূল্য অস্বাভাবিক বৃদ্ধি, যে এয়ার ফ্রেড আগে আমরা ২ ডলার থেকে আড়াই ডলারের মধ্যে প্রতিকেজি দিতে পারতাম এখন ইউরোপের মার্কেটে আমাদের ৬ থেকে ৮ ডলার দিতে হচ্ছে।

বড় চমক দেখিয়েছে গত মাসের রপ্তানি-বাণিজ্য। গেল অক্টোবরে আগের বছরের একই মাসের চেয়ে রপ্তানি বেড়েছে ৬০ দশমিক ৩৭ শতাংশ। 

বিশ্লেষকরা বলছেন, বিদ্যমান গতিশীলতা বজায় থাকলে চলতি অর্থবছরে রপ্তানি আয়ে নতুন রেকর্ড গড়তে পারে বাংলাদেশ। 

ভিডিও-

এএইচ/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি