ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০৬ মে ২০২১, || বৈশাখ ২২ ১৪২৮

বাস থেকে নারীকে ফেলে দিলো হেলপার, নিন্দার ঝড়

দোহার-নবাবগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৮:২৩, ৮ মার্চ ২০২১

বাস থেকে ফেলে দেয়ার পর আহত সেই নারী...

বাস থেকে ফেলে দেয়ার পর আহত সেই নারী...

ঢাকার নবাবগঞ্জ সড়কে চলাচলকারী এন মল্লিক পরিবহনের এসি বাস থেকে এক বাক প্রতিবন্ধী নারীকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ভাড়া দিতে না পারায় এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে বলে জানা যায়। রোববার (৭ মার্চ) সকালে কেরানীগঞ্জ উপজেলার রোহিতপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 

যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। এদিকে, ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সেটা রীতিমতো ভাইরাল হয়ে যায়। কয়েক লাখ মানুষ ভিডিওটি শেয়ার করেন। কমেন্টে অনেকেই এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। 

যোগাযোগ মাধ্যমে ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার পর সমালোচনার ঝড় উঠেছে। এন মল্লিক পরিবহনের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে থাকেন ফেসবুক ব্যবহারকারীরা। বিশেষ করে এন মল্লিক পরিবহনের চালক ও হেলপারদের বিরুদ্ধে। চালক ও হেলপারের বিরুদ্ধে কর্মকর্তাদের কাছে অভিযোগ দিলেও কোনও কাজ হয় না বলে জানান যাত্রীরা। 

ভিডিওতে দেখা যায়, এন মল্লিক পরিবহনের একটি বাস থেকে হেলপার এক নারীকে টেনে রাস্তায় ছুড়ে ফেলে দেন। এরপর বাসটি সামনে চলে যায়। ভিডিওর এক পর্যায়ে ওই বাসের নম্বরটি স্পষ্ট দেখা যায়। গাড়ির নম্বরটি হলো- ঢাকা মেট্রো-ব-১৩-১৫২১। ওই নারীকে ফেলে দেয়ার পর তাকে মাথা ধরে ব্যথায় যন্ত্রণায় কান্নারত অবস্থায় দেখা যায় ভিডিওতে।

গাড়ি থেকে ধাক্কা দিয়ে প্রতিবন্ধী নারীকে ফেলে দেয়ার ঘটনা চোখের সামনে দেখে হতবাক হয়ে যায় আশপাশের লোকজন। তারা আঘাতপ্রাপ্ত ওই নারীকে প্রাথমিকভাবে উদ্ধার করে সুস্থ করার চেষ্টা করেন। কথা বলার চেষ্টা করেন ওই নারীর সাথে। আহত ওই নারী ইশারায় জানান, তিনি কথা বলতে পারেন না। পরে তাঁর হাতে একটি কলম দেয়া দেয়া হলে পুরো ঘটনা লিখে জানান তিনি।

ওই নারী লেখেন, “বাসটি থেকে কোনাখোলা থেকে উঠাইছে, ভাড়া নাই, এন মল্লিক আমার থেকে কোনওদিন ভাড়া নেয় না, কিন্তু ওরা ভাড়া চায়, দিতে না পারায় এমন ব্যবহার!”

আরও একটি কাগজে তিনি লেখেন, “এখন যাব কি করে, পা দিয়ে হাঁটতে পারছি না ব্যথায়। আমারে একটু ব্যথার ওষুধ দিবা, দুই কান ভন ভন করছে, ব্যথা করছে, মাথা ধরছে।”

আহত ওই নারী আরও লেখেন, তার বাড়ি জয়পাড়া ঋষিপাড়ায়। নিচে লিখেন, ওই হেলাপারের নাকি জরিমানা দিতে হবে, আমার ভাড়া নাই তাই। এন মল্লিক ওঠায়ে দিবে জয়পাড়ার গাড়িতে।

এ ঘটনায় যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী রোববার রাতে নিজের ফেসবুক প্রোফাইলে একটি ভিডিও শেয়ার করেন। ভিডিওর ক্যাপশনে লেখা আছে, ‘ভাড়া নিয়ে তর্কের জেরে এন মল্লিক পরিবহনের এসি বাস থেকে এই নারীকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেন!’ 

এ ঘটনা নিয়ে আজ সোমবার বিকেলে একুশে টেলিভিশন প্রতিনিধিকে মোজাম্মেল হক বলেন, এটি মল্লিক পরিবহনের একটি বাস। এই বাসটি গুলিস্তান থেকে নবাবগঞ্জ সড়কে চলাচল করে। কতটা নির্দয় হলে একজন মধ্যবয়সী নারীকে বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়া যায়, এমন প্রশ্নের উত্তর হয়তো কারোই জানা নেই। ঠিক নারী দিবসের একদিন আগেই ঘটেছে এমন ঘটনা। তবে যে নারী যাত্রীকে বাস থেকে ফেলে দেয়া হয়েছে, তার পরিচয় সম্পর্কে কিছুই জানাতে পারেননি তিনি। আমরা তার পরিচয় শনাক্ত করতে পারিনি।

কোনও পদক্ষেপ নিয়েছেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা ঘটনার বিষয়ে জানতে পেরে সোমবার সকালে বিআরটিএকে বলেছি। যেহেতু গাড়ির নম্বর স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে, তাই আমরা গাড়ির নম্বরসহ বিআরটিএর অভিযোগ সেলে আমরা জানিয়েছি।

এন মল্লিক পরিবহনের জুয়েল নামে এক কর্মকর্তা বলেন, বাসের হেলপার নারীটিকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেননি। বাসে উঠতে গিয়ে মহিলাটি একাই পড়ে গেছে। 

এদিকে ভুক্তাভোগী নারীর সন্ধানে কাজ করছে র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। দোষীদের আইনের আওতায় আনার জন্য ঐ নারী বা যাত্রীদের কল্যাণে কাজ করা কোনও সংগঠনের অভিযাগ গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

এদিকে ভাড়া দিতে না পারার অপরাধে প্রতিবন্ধী নারী যাত্রীকে বাস থেকে ছুঁড়ে ফেলে আহত করার প্রতিবাদে নবাবগঞ্জে মানববন্ধন করেছে শিক্ষার্থীসহ দোহার-নবাবগঞ্জের সকল শ্রেণীপেশার মানুষ। সোমবার দুপুরে নবাবগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনের প্রধান সড়কে এ মানববন্ধন করা হয়।
 
মানববন্ধনে বক্তারা জানান, রবিবার সকালে কেরানীগঞ্জের কোনাখোলা থেকে এক বাকপ্রতিবন্ধী নারীযাত্রী এন মল্লিক পরিবহনে ওঠেন। ভাড়া দিতে না পারায় হেলপার-সুপারভাইজার মিলে রুহিতপুর এলাকায় ঐ নারীকে বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে দেয়। এতে ওই নারী মারাত্মকভাবে আহত হন। 

মানববন্ধনকারীরা যাত্রীবাহী বাস মালিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, ঢাকা-বান্দুরা রুটের বাস মালিকরা যাত্রীদের মানুষ মনে করুন। আপনারা জনগণের সেবা দিতে এসেছেন। তাই সেবা দিন, তা না হলে খুব শিগগির আপনাদেরকে সাধারণ জনগণ প্রতিহত করবে।

মানববন্ধনে ঢাকা জেলা দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক উমর ফারুক, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা তাসদীদ আহমেদ, নাহিদুল আলম সাজু, মনোয়ার মৃধা জনি, নবাবগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান রানা, দোহার-নবাবগঞ্জ কলেজের ছাত্রলীগের সভাপতি দীপ্ত দেওয়ান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শেখ নাহিদুল আলম নাদিম সাধারণ শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। 

এনএস/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি