ঢাকা, সোমবার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, || আশ্বিন ৪ ১৪২৮

কক্সবাজারে পৃথক বন্দুকযুদ্ধে রোহিঙ্গা ডাকাতসহ নিহত ২

কক্সবাজার প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৫:২৯, ১৬ জুলাই ২০২১

কক্সবাজারের টেকনাফ ও উখিয়া উপজেলায় র‍্যাব এবং বিজিবির সাথে পৃথক বন্দুকযুদ্ধে এক রোহিঙ্গা ডাকাত ও অপর এক ইয়াবা কারবারি নিহত হয়েছে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র ও ইয়াবা উদ্ধার করেছে বাহিনী দুটি।

টেকনাফে র‍্যাবে সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে রোহিঙ্গা ডাকাত গ্রুপ হাসেম বাহিনীর প্রধান হাসিমুল্লাহ (৩৩) নিহত হন। আজ শুক্রবার বেলা ১১টায় এক বিবৃতিতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে র‍্যাব-১৫।

র‍্যাব জানায়, কক্সবাজার জেলার টেকনাফ থানাধীন দমদমিয়া এলাকায় র‍্যাবের সাথে গুলি বিনিময়কালে শীর্ষ রোহিঙ্গা ডাকাত গ্রুপ হাসেম বাহিনীর প্রধান হাসিমুল্লাহ (৩৩) নিহত হয়। ঘটনাস্থল থেকে দেশি- বিদেশি অস্ত্র, গুলি ও ম্যাগজিন উদ্ধার করা হয়েছে।

ডাকাতির প্রস্তুতি ও দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের খবর পেয়ে আজ শুক্রবার ভোর রাতে র‍্যাব-১৫ এর একদল অভিযানে গেলে এই বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

অপর দিকে উখিয়ায় বিজিবির সঙ্গে গোলাগুলিতে লুৎফুর রহমান লুতু (৪০) নামের এক মাদক কারবারি নিহত হয়েছে। এসময় ৫০ হাজার ইয়াবাসহ অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) মধ্যরাতের  দিকে কক্সবাজারের উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নের নলবনিয়ার চিংড়ি ঘের এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত লুৎফুর রহমান লুতু (৪০) নলবনিয়া গ্রামের জালাল আহমদের ছেলে।

কক্সবাজারস্থ ৩৪ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদ জানান, উখিয়া সীমান্তে মাদক পাচারকালে বিজিবির অবস্থান টের পেয়ে পাচারকারীরা বিজিবিকে লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করে। এসময় বিজিবিও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। গোলাগুলি থামার পর ঘটনাস্থলে একজনের মৃতদেহ পাওয়া যায়। এসময় ঘটনাস্থল থেকে ৫০ হাজার ইয়াবা, অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়।

বিজিবি অধিনায়ক জানায়, নিহত লুৎফুর রহমান লুতু একজন দুর্ধর্ষ ডাকাত ও মাদক কারবারি। তার বিরুদ্ধে ১২টির অধিক মামলা রয়েছে। নিহতের মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট আইনে উখিয়া থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এনএস//


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি