ঢাকা, বুধবার   ০৩ মার্চ ২০২১, || ফাল্গুন ১৮ ১৪২৭

মাইক্রোওয়েভ ওভেনে ঝামেলাহীন ঝটপট রান্না 

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৭:৪১, ২৪ জানুয়ারি ২০২১

বর্তমানে আমাদের ব্যস্ত জীবনে মাইক্রোওয়েভ ওভেন ছাড়া রান্নাঘর ভাবাই যায় না৷ চটজলদি খাবার গরম থেকে শুরু করে যে কোন কিছু রান্নাও তাতে করা চলে—এতে সময় এবং শ্রম দুটোই বাঁচে। অতি ব্যস্ত জীবনে সময় বাঁচাতে মাইক্রোওয়েভ ওভেন একটি কার্যকরী হোম অ্যাপ্লায়েন্স। সাধারণ ওভেনে বাইরের দিকে খাবার গরম হয়। কিন্তু মাইক্রোওয়েভ ওভেনের সুবিধা হচ্ছে, এটি খাবারের ভেতরও গরম করে। রান্নার কাজে দিনকে দিন মাইক্রোওয়েভ ওভেন সারাবিশ্বে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। 

বাংলাদেশেও বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করছে মাইক্রোওয়েভ ওভেন। দেশের বাজারে বেশ কিছু ব্র্যান্ডের মাইক্রোওয়েভ ওভেন পাওয়া যাচ্ছে। এসব ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে একধাপ এগিয়ে আছে সিঙ্গারের মাইক্রোওয়েভ ওভেন। নান্দনিক ডিজাইন, অত্যাধুনিক প্রযুক্তি এবং দীর্ঘমেয়াদী সেবা প্রদানের কারণেই বাজারে থাকা অন্যান্য মাইক্রোওভেনের চেয়ে সিঙ্গারের মাইক্রোওয়েভ ওভেন ক্রেতাদের কাছে বেশি জনপ্রিয়। বাজারে সিঙ্গারের তিন ধরণের মাইক্রোওয়েভ ওভেন রয়েছে। এগুলো হলো: সলো মাইক্রোওয়েভ ওভেন, মাইক্রোওয়েভ উইথ গ্রিল (কম্বি গ্রিল) এবং মাইক্রোওেয়েভ ওভেন+গ্রিল+কনভেকশন।    

সলো মাইক্রোওয়েভ ওভেন: সলো মাইক্রোওয়েভ অনেকটা সাধারণ মাইক্রোওয়েভ ওভেনের মতোই ব্যবহার করা যায়। এটি খুব দ্রুততম সময়ের মধ্যে খাবারকে গরম করে। এই মাইক্রোওয়েভ ওভেন দিয়ে খুব সুন্দরভাবে বেকিংয়ের কাজও করা যায়। বর্তমানে বাজারে সিঙ্গারের ৩৬ লিটারের সলো মাইক্রোওয়েভ ওভেন পাওয়া যাচ্ছে। মাইক্রোওয়েভ ওভেনটির স্পেসিফিকেশন নিম্নরূপ:
-    মাইক্রোওয়েভ ওভেনটির মাইক্রোওয়েভ পাওয়ার আউটপুট ১০০০ ওয়াট।
-    রেটেড ইনপুট পাওয়ার (গ্রিল): ১১০০ ওয়াট।
-    ৩৬ লিটার ধারণক্ষমতা সম্পন্ন।
-    এটিকে ডিজিটালি নিয়ন্ত্রণ করা যায়।
-    এর টাচ বাটন রয়েছে।

মাইক্রোওয়েভ উইথ গ্রিল (কম্বি গ্রিল): কম্বি গ্রিল মাইক্রোওয়েভ ওভেন দিয়ে কাবাব, পরোটা জাতীয় খাবার খুব সহজেই ও ভালোভাবে তৈরি করা যায়। বর্তমানে বাজারে সিঙ্গারের ৩০ লিটারের সলো মাইক্রোওয়েভ ওভেন পাওয়া যাচ্ছে। এই মাইক্রোওয়েভ ওভেনটির বেশ কিছু স্পেসিফিকেশন রয়েছে। 

-    এটি ৩০ লিটার ধারণক্ষতা সম্পন্ন। 
-    সাধারণ খাবার রান্নার পাশাপাশি এটি দিয়ে গ্রিল কুকিংও করা যাবে। 
-    মাইক্রোওয়েভ ওভেনটি দিয়ে দেশি, কন্টিনেন্টাল, থাই, চাইনিজ এবং ওয়েস্টার্ন খাবার রান্না করা যাবে। 
-    মাইক্রোওয়েভ ওভেনটির বাইরের দিকে স্টিল সিলভার ব্যবহার করা হয়েছে। 


মাইক্রোওেয়েভ ওভেন+গ্রিল+কনভেকশন: এই মাইক্রোওয়েভ ওভেনটি দিয়ে খাবার গরম করার পাশাপাশি রান্নাও করা যাবে। বর্তমানে, বাজারে সিঙ্গারের ৩০ লিটারের দু’টি মডেলের মাইক্রোওয়েভ ওভেন রয়েছে। এই দু’টি মডেলের মাইক্রোওয়েভ ওভেনের বেশ সমৃদ্ধ স্পেসিফিকেশন রয়েছে। 
-    নান্দনিক ডিজাইন সমৃদ্ধ। 
-    চাইল্ড লক।
-    মাইক্রোওয়েভ ফ্রিকোয়েন্সি ২৪৫০ মেগাহার্টজ।
-    এসআরএমও- এসএমডব্লিউ৩০জিসিবি৮ মডেলের মাইক্রোওয়েভ ওভেনটির ধারণক্ষমতা ৩০ লিটার।
-    এই মডেলের মাইক্রোওয়েভ ওভেনটি দিয়ে বেকারি পণ্যসহ যেকোন কিছুই রান্না করা যায়।
-    সহজেই পরিষ্কারযোগ্য। 
-    নান্দনিক ও দীর্ঘস্থায়ী।
-    বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী।  

মানুষকে বৈচিত্র্যপূর্ণ ও মজাদার খাবারের স্বাদ দিতে এবং তাদের রান্নার দক্ষতা বাড়াতে সিঙ্গার বাংলাদেশ অনলাইনে একটি কুকিং শো চালু করেছে। এই কুকিং শোতে রান্না বিষয়ে অভিজ্ঞরা এসে সহজে কীভাবে বিভিন্ন মজাদার খাবার তৈরি করা যায় তা দেখান। ক্রেতারা সিঙ্গারের মাইক্রোওয়েভ ওভেনগুলো বিনাসুদে ছয় মাসের কিস্তি সুবিধায় ক্রয় করতে পারবেন। মাইক্রোওয়েভ ওভেনগুলোতে দুই বছরের ওয়্যারেন্টি সুবিধা রয়েছে। সিঙ্গার অনলাইন শপ থেকে যে কোনো পণ্য কিনলে ক্রেতারা সারাদেশে ফ্রি হোম ডেলিভারি সুবিধা পাবেন। এছাড়াও, বাংলাদেশের যে কোন সিঙ্গার শোরুম অথবা সার্ভিস সেন্টার থেকে বিক্রয়োত্তর সেবাও পাবেন।  

আরকে// 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি