ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৯ জুলাই ২০২১, || শ্রাবণ ১৩ ১৪২৮

একাদশে থাকছেন সৌম্য

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৭:০৬, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ওপেনিং নিয়ে বাংলাদেশের সমস্যাটা কাটছেই না। তাও আবার মরার ওপর খাড়ার ঘাঁ। ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবাল চোট পেয়ে ফিরে এসেছেন এশিয়া কাপ থেকে।

অফ ফর্মের কারণে দল থেকে ছিটকে পড়েছিলেন দুই ওপেনার সৌম্য সরকার ও ইমরুল কায়েস। পরে অবশ্য এই দু’জনকে সিরিজের মাঝখানে উড়িয়ে নেওয়া হয়েছে।

এদের মধ্যে ইমরুল কায়েস যে আজকের ম্যাচ খেলছেন সেটি মোটামুটি নিশ্চিত। কারণ গত ম্যাচে বড় স্কোর গড়ে দলকে খাদের কিনারা থেকে তুলে ধরেন এই বাঁ হাতি। তবে ইমরুল খেলবেন মিডলঅর্ডারে। কারণ মিডলঅর্ডার সাব্বির রহমান দলে নেই।

ভেতরকার খবর হচ্ছে গত ম্যাচে বসিয়ে রাখা সৌম্যে সরকারকে আজ মাঠে দেখা যেতে পারে। লিটন দাসের সঙ্গে তাকে ম্যাচ ওপেন করানো হতে পারে।

তামিমের জায়গায় টানা চার ম্যাচে সুযোগ দেওয়া হয়েছিল তরুণ ওপেনার নাজমুল হোসেন শান্তকে। চার ম্যাচেই তিনি ব্যর্থ। ৭, ৭, ৬—২০ রানের বেশি অবদান রাখতে পারেননি তরুণ এই ওপেনার।

লিটন দাস দিতে পারছেন না প্রত্যাশার প্রতিদান। তবে ইতিবাচক দিক হচ্ছে ০, ৬, ৭ রানের পর সবশেষ আফগানদের বিপক্ষে ৪১ রান করেছেন।

১, ১৫, ১৫ ও ১৬—গত চার ম্যাচে বাংলাদেশের ওপেনিং জুটির অবদান। উদ্বোধনী জুটি যদি ধারাবাহিক এমন অনুজ্জ্বল হয়, পুরো দলের ওপর এর চাপ পড়ে।

এদিকে প্রায় এক বছর ওয়ানডে দলের বাইরে থাকা সৌম্যর একটা আনন্দস্মৃতি আছে পাকিস্তানের বিপক্ষে। ওয়ানডে ক্যারিয়ারের একমাত্র সেঞ্চুরি ও সর্বোচ্চ (১২৭) রানের ইনিংসটা তাঁর পাকিস্তানের বিপক্ষেই খেলা। প্রতিপক্ষ দলে বাঁহাতি পেসারের আধিক্য ও অতীত রেকর্ড ঘাঁটলে সৌম্যকে একাদশের বাইরে রাখার যৌক্তিকতা খুঁজে পাওয়া যাবে না।

তবে একটি সূত্র জানায়, গতকাল বিকেলে টিম হোটেলে বসা একটি বৈঠক থেকে সিদ্ধান্ত হয়েছে যে, সৌম্য সরকারকে একাদশে রাখা হবে। ওপেনার নাজমুল হাসান শান্তর বদলেই খেলবেন তিনি। তবে টেবিল থেকে আসা সিদ্ধান্ত পাকা হয়নি তখনও।

রাতেই ঢাকা থেকে দুবাই আসার কথা নাজমুল হাসান পাপনের। আজ তিনি আবুধাবিতে ম্যাচটিও দেখতে যাবেন। তার সঙ্গেই একাদশ নিয়ে একটা আলোচনা হতে পারে। যদিও স্কোয়াড নির্বাচন নিয়ে বিসিবিপ্রধানের ভূমিকা থাকলেও একাদশ নির্বাচনে অধিনায়ক আর কোচের সিদ্ধান্তই পাকা।

টিম মিটিংয়ে নাজমুল হাসান শান্তকে এক ম্যাচে আরেকটি সুযোগ দেওয়ার কথা উঠেছিল বটে; কিন্তু তাতে খুব বেশি যুক্তি ছিল না।

এই টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত অভিজ্ঞরাই ভালো করছে। তারা কন্ডিশন ও পরিস্থিতির সঙ্গে নিজেদের মানিয়ে নিতে পারছেন। সে যুক্তিতেই সৌম্যকে ফের ওপেনে নামানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। তা ছাড়া স্কোয়াডে দুই পেসার খেলানো হলে প্রয়োজনে মিডিয়াম পেসার সৌম্যকে দিয়েও কয়েক ওভার বোলিং করানো যেতে পারে। গতকাল অনুশীলনে কোচ কোর্টনি ওয়ালশ অনেকক্ষণ ধরে সৌম্যকে দিয়ে বোলিং করিয়েছেন।

/ এআর /


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি