Ekushey Television Ltd.

ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া মহারণে কে এগিয়ে

প্রকাশিত : ১২:৩৩ ১১ জুলাই ২০১৯ | আপডেট: ১৭:৩৩ ১১ জুলাই ২০১৯

বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে আজ স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। ৯ ম্যাচের সাতটি জয়ে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে থাকা অজিদের সেমির টিকিট পেতে তেমন বেগ পেতে হয়নি। অপরদিকে, স্বাগতিকদের বেশ চ্যালেঞ্জের মধ্য দিয়েই আসতে হয়েছে। লিগপর্বের মাঝপথে এসে পরপর দুই ম্যাচে হারের ফলে ছিটকে পড়ার আশঙ্কা দেখা দেয় মরগানদের। কিন্তু শেষ দুই ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ায় ইংলিশরা। ফলে, নিউজিল্যান্ডকে অপেক্ষায় রেখে সেমির টিকিট আগেই নিশ্চিত করে ইংল্যান্ড।

তাই বলা যায়, সেমির যাত্রাটা যতোটা মসৃণ ছিল অজিদের, ততোটাই কঠিন ছিল স্বাগতিকদের।

২৭ বছর পর সেমির টিকিট পেয়েছে ইংল্যান্ড। পাঁচবারের চ্যাম্পিয়নদের সঙ্গে তিনবারের রানার্সআপ ইংলিশদের জন্য এ ম্যাচটি তাই পরীক্ষাই বটে। কেননা, ১৯৯২ আসরের পর বিশ্বকাপের কোন আসরে অজিদের হারাতে পারেনি ইংলিশরা।

চলতি আসরেও ৬৪ রানের জয় পায় অস্ট্রেলিয়া। তাই আজ জিততে পারলে দীর্ঘ বন্ধ্যত্ব কাটবে মরগানদের।

আশার কথা হলো- অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে শেষ ১২টি ওয়ানডের ১০টিই জিতেছে ইংল্যান্ড। আজ যেখানে খেলা সেই এজবাস্টনে ১৯৯৩ সালের পর কোনো ওয়ানডে জেতেনি অস্ট্রেলিয়া।

এছাড়া, শেষ দুই ম্যাচে নিজেদের সামর্থ্যের পরিচয় দিয়েই সেমির লড়াইয়ে উঠেছে ইংল্যান্ড। ফলে, নিজেরা পরীক্ষা দেয়ার পাশাপাশি, অজিদেরও পরীক্ষা নিতে চান মরগানরা। ঘোচাতে চান ট্রফি খরা।

আসরের শুরুতে অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক ফিন্স বলেছিলেন, এবার যদি তারা সেমিতে যেতে পারেন, তাহলে ইংলিশদের সঙ্গে লড়াই করতে হবে। তার কথাই হলো শেষ পর্যন্ত।  

তবে বিশ্বের ক্রিকেটপ্রেমিরা ভেবেছিল দু’দুলের লড়াই হবে ফাইনালে। কিন্তু লিগপর্বের শেষ ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে অস্ট্রেলিয়া হেরে যাওয়ায় সেমিতে মুখোমুখি হতে হলো ক্রিকেটের দুই অভিভাবককে। ফলে, ফাইনালের আগেই যেকোন একজনকে বাড়ি ফিরতে হবে। 

বিশ্বকাপের আসরে ফেভারিট খোঁজাটা হবে বোকামি। অন্তত গতকালকের ম্যাচে কিউইদের কাছে ভারতের হারই তার প্রমাণ দেয়।

দিন শেষে দুই পুরনো শত্রুর শ্রেষ্ঠত্বের মীমাংসা হবে মাঠেই। সেখানে শক্তির বিচারে কেউ কারও চেয়ে কম নয়।

অস্ট্রেলিয়ার দুই ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার ও অ্যারন ফিঞ্চের মতো ইংল্যান্ডের জনি বেয়ারস্টো ও জেসন রয়ও আছেন আগুনে ফর্মে।

তবে জো রুট, ইয়ন মরগ্যান, জস বাটলার ও বেন স্টোকসকে নিয়ে সাজানো ইংল্যান্ডের মিডলঅর্ডার দৃশ্যত বেশি ভয়ংকর। এখানেই একটু পিছিয়ে অস্ট্রেলিয়া।

চোটের থাবায় উসমান খাজা ছিটকে যাওয়ায় অপরীক্ষিত পিটার হ্যান্ডসকাম্বকে আজ খেলাতে বাধ্য হচ্ছে অস্ট্রেলিয়া।

স্টিভেন স্মিথ ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েলও নিজেদের সেরা ছন্দে নেই। বোলিংয়ে আবার এগিয়ে অস্ট্রেলিয়া। ইংল্যান্ডের আর্চার, উডদের চেয়ে ঢের ভয়ংকর মিচেল স্টার্ক ও প্যাট কামিন্স। নয় ম্যাচে এরই মধ্যে ২৬ উইকেট নিয়েছেন স্টার্ক।

আজ এক উইকেট পেলেই পূর্বসূরি গ্লেন ম্যাকগ্রাকে ছাড়িয়ে এক বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি উইকেট শিকারে নতুন রেকর্ড গড়বেন স্টার্ক। তবে রেকর্ড নয়, অস্ট্রেলিয়ার গতি তারকার ধ্যান-জ্ঞান এখন শিরোপা।

অন্যদিকে দীর্ঘ প্রস্তুতি কতটা বদলাতে পেরেছে ইংল্যান্ডকে, আজ তার আসল পরীক্ষা। সেই পরীক্ষায় বাগড়া দিতে পারে বৃষ্টি। তবে বার্মিংহামে আজ বৃষ্টির পূর্বাভাস থাকলেও তাতে ম্যাচ ভেসে যাওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ। এছাড়া রিজার্ভ ডে তো আছেই।

বাকি শুধু মাঠে নামার অপেক্ষা। বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৩টায় বার্মিংহামের এজবাস্টনে ম্যাচটি শুরু হবে।

আই/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি