ঢাকা, সোমবার   ২২ জুলাই ২০১৯, || শ্রাবণ ৭ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

একুশে টেলিভিশন নতুনত্ব সৃষ্টি করেছিল: আবেদ খান

প্রকাশিত : ১৪:৩৬ ২২ জুন ২০১৯ | আপডেট: ১৬:৩৫ ২৪ জুন ২০১৯

প্রেস ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশের (পিআইবি) পরিচালনা বোর্ডের চেয়ারম্যান আবেদ খান বলেছেন, ‘একুশে টেলিভিশন সমাজের চেহারা পাল্টে দিয়েছিল। মন ও মননের পরিবর্তন ঘটিয়ে একুশে টেলিভিশন দিয়েই আমরা নতুনত্ব সৃষ্টি করেছিলাম।’ শনিবার রাজধানীতে একুশে টেলিভিশনের প্রধান কার্যালয়ে টেলিভিশনের প্রতিনিধি সম্মেলনে সাংবাদিকতা ও পেশাগত দক্ষতা বিষয়ক অধিবেশনে এসব কথা বলেন তিনি।

এসব কিছু সম্ভব হয়েছিল সবার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এ সময় আবেদ খান বলেন, ‘ইচ্ছে মতো ভুল চাঞ্চল্যকর তথ্য সাংবাদিকরা দিতে পারেন না। সাংবাদিকরা মানবতার জন্য কাজ করেন। মহান মুক্তিযুদ্ধ আমাদের মানবিকতা জাগ্রত করেছে। স্বপ্ন মানুষকে এগিয়ে নিয়ে যায়। উদ্দিপনা তৈরি করে। যে মানুষ যত বড় তার স্বপ্ন তত বড় ।’ ১৯৭১ সালের সাড়া জাগানো বিদেশী সাংবাদিক সাইমন ড্রিং-এর মতো অনেক বিশিষ্ট সাংবাদিকদের হাত ধরেই একুশে টেলিভিশন পথ চলা শুরু করেছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘একটি প্রতিষ্ঠানকে দাঁড় করাতে হলে সকলের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা দরকার। হৃদয় দিয়ে কাজ করতে হয়। যারা এক সময়ে এ টেলিভিশনে কাজ করেছেন তারা আজ সাংবাদিকতায় অন্যন্য অবস্থানে এসেছেন। যারা এখানে শিখেছিলেন তারা প্রমাণ করেছেন তারা ভুল জায়গায় শিক্ষা লাভ করেননি।’

সকলের প্রচেষ্টায়ই একুশে টেলিভিশন এই জায়গায় এসেছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘প্রতিষ্ঠান যেন কোন অবস্থাতেই ব্যক্তির চেয়ে ছোট না হয়ে যায়। নতুন প্রজন্ম একুশে টিভিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।’ বাংলাদেশের টেলিভিশন সাংবাদিকতায় একুশে টেলিভিশনের অন্যতম অবদান রয়েছে। টেলিভিশনের প্রতিটি বিষয় এই একুশে থেকেই শুরু হয়েছিল বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন একুশে টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মেজর জেনারেল (অব.) মোহাম্মাদ আলী শিকদার, বার্তা প্রধান মোহসীন আব্বাসসহ জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক ও কর্মকর্তাবৃন্দ।

এর আগে প্রতিনিধি সম্মেলনের উদ্বোধনী পর্বের প্রধান অতিথি ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

দিনব্যাপি এ সম্মেলনকে কয়েকটি অধিবেশনে ভাগ করা হয়েছে। এ অধিবেশনগুলোয় প্রতিনিধিদেরকে মৌলিক কর্মশালায় প্রশিক্ষণও দেয়া হবে। অধিবেশনগুলোয় একুশে টেলিভিশনের জ্যেষ্ঠ সাংবাদিকরা প্রতিনিধিদের দিকনির্দশনা প্রদান করবেন।

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি