ঢাকা, বুধবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, || আশ্বিন ৩ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

একে-৪৭ নিয়েই ফুটবল প্রশিক্ষণ!

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৩:২৫ ২১ আগস্ট ২০১৯

ব্রাজিলিয়ান ফুলব্যাক নিয়ে মাতামাতি গোটা ইউরোপ জুড়েই। কিংবদন্তি ফুলব্যাক রবার্তো কার্লোসের উত্তরসূরি হিসেবে দানি আলভেজ ও মার্সেলোও প্রতিষ্ঠিত হয়ে গেছেন ক্লাব ফুটবলে। ফিলিপে লুইস, অ্যালেক্স সান্দ্রো, দানিলো, মিলিতাওরা এখনও সে পর্যায়ে যেতে না পারলেও দলবদলের বাজারে তাদের জন্য কম কড়ি খসেনি পরাশক্তিদের।

মার্সেলো-লুইসদের কাতারে নাম লেখাতে না পারলেও যে কম চমকের জন্ম দেন নি আরেক ব্রাজিলিয়ান দানিলো এ্যাভেলার। এই ফুলব্যাকের অভিজ্ঞতার ভান্ডার মার্সেলোদের চেয়েও যে বেশি। হাজার হলেও যুদ্ধের অস্ত্র নিয়ে ফুটবল প্রশিক্ষণ করতে পারার দাবিটা কয়জনই বা করতে পারেন!

৩০ বছর বয়সী এ্যাভেলারের ক্যারিয়ার তবুও বেশ দীর্ঘই বলতে হবে, ১২ বছরের। এই এক যুগে কম দেশ ঘোরা হয়নি তার। ইউরোপের তিনটি শীর্ষ লিগে খেলেছেন। জার্মানি, ইতালি, ফ্রান্সে যাওয়ার আগেই অবশ্য ইউক্রেনে খেলা হয়ে গেছে তার। আর সেখানে খেলার সুবাদেই গড়েছেন অনন্য এক রেকর্ড। একে-৪৭ হাতে নিয়ে অনুশীলন করেছেন এ্যাভেলার।

ছয় বছর আগেই কারপাতি লভিভের সঙ্গে সম্পর্ক শেষ হয়েছে অ্যাভেলারের। করিন্থিয়ানসে ফিরে আসা এই ডিফেন্ডার মঙ্গলবার লিগের ম্যাচ শেষে হঠাৎ করে পুরনো অভিজ্ঞতার কথা জানালেন, আমি যখন ইউক্রেনে খেলতাম, ‘আমাদের কোচ এক সামরিক ঘাঁটিতে নিয়ে গিয়েছিলেন অনুপ্রাণিত করার জন্য। আমরা একটা একে -৪৭ দিয়ে গুলিবর্ষণ করেছিলাম। আমাদের মধ্যে একজন তো বাজুকাও ব্যবহার করেছিল।’

ভয়ংকর সব অস্ত্র নিয়ে অনুশীলন করে, অনুপ্রাণিত করেও যে দলের অবস্থার খুব একটা পরিবর্তন হয়নি সেটাও জানাতে দ্বিধা করলেন না অ্যাভেলার। তিনি বলেন, ‘পরের দিনই খেলা ছিল। যে খেলায় আমরা ৫-০ গোলে হেরেছিলাম!’
 
এনএস/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি