ঢাকা, শনিবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, || আশ্বিন ২ ১৪২৮

চতুর্থবারের মতো গিনেজ বুকের স্বীকৃতি মাগুরার মাহমুদুলের

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৮:৪৫, ২৫ এপ্রিল ২০২০

মাহমুদুল হাসান। বয়স ১৮ বছর। তার বাড়ি মাগুরা সদর উপজেলার হাজিপুর গ্রামে। সে মাগুরা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ম্যাকাট্রনিক্স বিভাগে ডিপ্লোমা প্রকৌশলের ছাত্র। গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে উঠেছে তার নাম। তবে এক-দুই বার নয়, মোট চার বার উঠেছে এই তরুণের নাম।   

বৃহস্পতিবার রাতে চতুর্থবারের মতো গিনেজ বুকের স্বীকৃতি পান তিনি। এবার মাহমুদুল এক মিনিটে ৬৬ বার ফুটবল ঘাড়ের ওপর নাচিয়ে এই রেকর্ড গড়েছেন। এর আগেও তিনবার গিনেজ বুকে নাম তুলেছেন মাহমুদুল। সেগুলো হলো-গত বছর আগস্টে এক মিনিটে সবচেয়ে বেশি বার ঘাড়ের ওপর বাস্কেটবল নাচিয়ে রেকর্ড, একই বছরের এপ্রিলে এক মিনিটে দুই হাতের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ১৪৪ বার বাস্কেটবল ঘুরিয়ে রেকর্ড এবং ২০১৮ সালে এক মিনিটে সবচেয়ে বেশি ১৩৪ বার বাহুর ওপরে ফুটবল ঘুরিয়ে রেকর্ডের মালিক হন তিনি।

মাহমুদুলের বাবা সোহেল রানা অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য। মা মঞ্জুয়ারা খানম গৃহিণী।

শুরুতে পরিবার থেকে সমর্থন না পেলেও এখন তার কীর্তিতে খুশি বাবা-মা। 

এ বিষয়ে মা মঞ্জুয়ারা খানম বলেন, ‘এই খেলা বাংলাদেশে তেমন একটা পরিচিত না। তাই ওকে পড়ালেখার জন্যই চাপ দিতাম। কিন্তু ও লুকিয়ে লুকিয়ে চর্চা করত। এখন চাই ও আরও অনেক রেকর্ড করুক। বিশ্বমঞ্চে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করুক।’

মাহামুদুল হাসান জানায়, কোনো পেশাদারি প্রশিক্ষণ ছাড়াই এসব কীর্তি গড়েছে সে। ফুটবল-ক্রিকেটের মতো পৃষ্ঠপোষকতা না থাকায় ফ্রি স্টাইল গেম বাংলাদেশে জনপ্রিয় হচ্ছে না। এটিকে জনপ্রিয় করতে যে ধরনের ব্যায়ামাগার, প্রশিক্ষক বা অন্যান্য সহযোগিতা দরকার, তা পাওয়া যায় না। ঢাকায় পাওয়া গেলেও মাগুরার মতো স্থানীয় পর্যায়ে কোনো প্রাতিষ্ঠানিক সহযোগিতা নেই। বিভিন্ন ক্লাব বা ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান এগিয়ে এলে বাংলাদেশে ফ্রি স্টাইল গেম আরও জনপ্রিয় হবে বলে মনে করে এই কিশোর। নিয়মিত পড়ালেখার পাশাপাশি সে নিজেকে বিশ্বমানের একজন ফ্রি স্টাইলার হিসেবে গড়ে তুলতে চায়।

এসএ/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি