ঢাকা, শুক্রবার   ১৮ অক্টোবর ২০১৯, || কার্তিক ৩ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

জাদেজা-ধোনির আউটে বাকরুদ্ধ স্টেডিয়াম

প্রকাশিত : ১৯:৪৯ ১০ জুলাই ২০১৯

নিউজিল্যান্ডের দেয়া ২৪০ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে কিউই বোলারদের তোপে ৯২ রানেই ছয় উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকে ভারত। পরে ধোনিকে সঙ্গে নিয়ে সপ্তম উইকেটে পাল্টা আক্রমণ করে খেলা জমিয়ে দেন জাদেজা। তবে ৪৮ ও ৪৯তম ওভারে আউট হয়ে ভারতকে ফের বিপদে ফেলে দেন ফিফটি করা জাদেজা ও ধোনি। 

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৪৮ ওভারে ভারতের সংগ্রহ ৭ উইকেটে ২০৯ রান। ক্রিজে আছেন এম এস ধোনি ৪৩ রানে এবং ভুবনেশ্বর ০ রানে।

জাদেজার আগে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে হার্দিক পান্ডিয়া আউট হয়েছেন ৩২ রান করে। তাঁর আগে চার নম্বরে নামা ঋষভ পন্তও আউট হন সমান ৩২ রান করে। এ দুজনেরই উইকেট তুলে নেন স্পিনার মিচেল স্যান্টনার।

এর আগে জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামা ভারতকে শুরু থেকেই চেপে ধরেন কিউই পেসাররা। আর সেই চাপ থেকে মুক্ত হতে পারেননি এ বিশ্বকাপের সর্বাধিক সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে রেকর্ড গড়া ওপেনার রোহিত শর্মা। দ্বিতীয় ওভারেই ম্যাট হেনরির বলে কিপার ল্যাথামের গ্লাভসে ধরা পড়েন এ আসরের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। আউট হওার আগে নিজের নামের পাশে যোগ করতে পারেন মাত্র ১ রান। ভারতের রান তখন মাত্র ৪।

এরপর তৃতীয় ওভারে এসে নতুন ক্রিজে আসা অধিনায়ক কোহলিকেও দাঁড়ানোর সুযোগ দেননি ট্রেন্ট বোল্ট। এই বাঁহাতির লেগ বিফোরের শিকার হয়ে ফেরার আগে কোহলিও করেন সেই ১ রান। পরের ওভারে আবারো ভারতীয় শিবিরে আঘাত হানেন হেনরি। এবার আরেক ওপেনার লোকেশ রাহুলকেও সেই ১ রানেই ক্রিজ ছাড়া করে নিজের দ্বিতীয় উইকেট তুলে নেন ডানহাতি পেসার। অর্থাৎ তিন টপ অর্ডারের রান ১, ১ ও ১। যা এবারের বিশ্বকাপে সত্যিই বিস্ময়কর ঘটনা!

যাইহোক, এর ফলে মাত্র ৫ রানেই ৩ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা দলকে টেনে তোলার চেষ্টা চালান দিনেশ কার্তিক ও ঋষভ পন্ত। কিন্তু তাদের সে চেষ্টায় বাধ সাধেন ঘাতক ম্যাট হেনরি। এক বাউন্ডারিতে ৬ রান করা কার্তিককেও তুলে নেন তিনি। জিমি নিশামের অসাধারণ এক ক্যাচ হয়ে কার্তিক যখন ফেরেন, তখন ভারতের রান ১০ ওভারে ২৪। আর এতেই কাঁপতে থাকে অলব্লুজ শিবির।

এর আগে চলতি বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনালে উইলিয়ামসন ও রস টেলরের লড়াকু ফিফটিতে ভর করে ভারতকে ২৪০ রানের লক্ষ্য দিয়েছে নিউজিল্যান্ড। তবে ফাইনালে যেতে হলে কিউই পেসারদের তোপের মুখে কঠিন পরীক্ষা দিয়েই ওই রান করতে হবে ভারতকে।

বৃষ্টি বিঘ্নিত এ সেমিফাইনালের প্রথম দিন ৪৬.১ ওভারে পাঁচ উইকেটে ২১১ রান সংগ্রহ করে নিউজিল্যান্ড। আর আজ দ্বিতীয় দিনে ব্যাটিং করে বাকি ২৩ বলে ২৮ রান সংগ্রহ করতে সমর্থ হয় কিউইরা। তবে এই রান তুলেতে গিয়েই তাদের হারাতে হয়েছে আরো তিনটি উইকেট।

আগের দিনের অপরাজিত দুই ব্যাটসম্যান রস টেলর আউট হন আরো সাত রান যোগ করে ৭৪ রানে। তার ৯০ বলের ইনিংসটিতে ছিলো তিনটি চার এবং কিউই ইনিংসের একমাত্র ছক্কার মার। আর ল্যাথামও আউট হন টেলরের মত সাত রান যোগ করেই।

এছাড়া আগের দিন দলের ইনিংসকে মজবুত ভিতের ওপর দাড় করাতে ৯৫ বলে ৬৭ রানের অতি ধৈর্যশীল ইনিংস খেলেন বিপদের কাণ্ডারি কেন উইলিয়ামসন। যাতে চারের মার ছিলো ছয়টি। আর এই ইনিংস খেলে নয় ম্যাচের আট ইনিংসে ব্যাট করে দুটি করে শতক আর অর্ধশতকে চতুর্থ সর্বোচ্চ ৫৪৮ রান করেন কিউই রান মেশিন।

এদিকে ভারতীয় বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে সফল বোলার ছিলেন ভুবনেশ্বর কুমার। সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট লাভ করেন তিনি। এছাড়া বুমরাহ, পান্ডিয়া, চাহাল ও জাদেজা প্রত্যেকে একটি করে উইকেট তুলে নেন।

এনএস/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি