ঢাকা, মঙ্গলবার   ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ২৬ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

বাংলাদেশ-ভারত দলের শক্তিমত্তার পার্থক্য

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৯:৩০ ১৪ নভেম্বর ২০১৯

ভারতের বিপক্ষে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে আজ বৃহস্পতিবার মাঠে নামবে বাংলাদেশ। ইন্দোরের হলকার স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে সকাল ১০টায়। টি-টুয়েন্টি সিরিজ হারের পর টেস্টে সাফল্য পেতে মরিয়া টিম বাংলাদেশ। আর জায়ান্ট ভারত শুরু থেকেই ম্যাচে আধিপত্য রাখতে চায়। 

ওয়ানডে আর টি-টুয়েন্টির সাফল্যের বিপরীতে, টেস্টে পিছিয়ে বাংলাদেশ। এ ছাড়া, সম্প্রতি ক্রিকেটারদের আন্দোলন আর সাকিবের নিষেধাজ্ঞায় কিছুটা মানসিক চাপ থাকছেই টাইগারদের। সাকিবের পরিবর্তে অধিনায়কের আর্মব্যান্ড এখন মুমিনুলের হাতে। একদিকে অভিজ্ঞ সাকিব-তামিম দলে নেই। পাশাপাশি মায়ের অসুস্থতায় স্কোয়াডের বাইরে মোসাদ্দেক। এমন দল নিয়ে শক্তিধর ভারতের বিপক্ষে সাফল্য পাওয়া কঠিন-এ কথা মানছেন মুমিনুল। এরপরও সামর্থের সবটুকু উজাড় করে সমান তালে লড়াইয়ের আভাস দিলেন বাংলাদেশ দলপতি।

এদিকে, টি-টুয়েন্টিতে তারুণ্য নির্ভর দল নিয়ে খেললেও, টেস্টে পূর্ণ শক্তি নিয়েই খেলবে স্বাগতিকরা। ঘরের মাঠে একাধিক ম্যাচ উইনার নিয়ে লড়াইয়ে নামবেন কোহলি। আগে নিজেদের ভেন্যুতে ভারত ছিল স্পিন নির্ভর। এবার দলে আছে অভিজ্ঞ ইশান্থ শর্মা ছাড়াও মোহাম্মদ শামি’র মত পেসার। ব্যাটিংয়ে আজাঙ্কা রাহানে, রোহিত শর্মারা যে কোনও সময় ম্যাচের মোড় ঘুরাতে সক্ষম। শক্তির বিচারে বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে থাকলেও প্রতিপক্ষকে হালকাভাবে নিচ্ছে না ভারতীয় দলপতি।

ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে এখন পর্যন্ত মোট ৯টি টেস্ট খেলা হয়েছে, যার মধ্যে তিনটি ম্যাচে বাংলাদেশ ইনিংস ব্যবধানে হেরেছে।

প্রথম ম্যাচটিতে হেরেছে ৯ উইকেটে। এরপর একটি ম্যাচে ১০ উইকেটে হেরেছে। ভারত ২০১৭ সালে বাংলাদেশকে এক টেস্ট ম্যাচে হারিয়েছে ২০৮ রানে।

ভারত মোট সাতটি টেস্ট ম্যাচ জিতেছে বাংলাদেশের বিপক্ষে, বাকি দুটি ম্যাচ ড্র হয়েছে বৃষ্টির কারণে।

ভারতের মাটিতে সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকা একটি টেস্ট সিরিজ খেলেছে যেখানে কোনও ম্যাচেই ভারতের সামনে দাঁড়াতে পারেনি দক্ষিণ আফ্রিকা।

এক সময়, ভারতে উইকেট তৈরি করা হতো স্পিন বোলারদের সুবিধা বিবেচনা করে। কিন্তু এখন ভারতের যে পেস বোলিং লাইন আপ তাতে আর এটা নিয়ে খুব বেশি ভাবতে হয় না।

যেমন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষেই মোট ২৬টি উইকেট নিয়েছেন ইশান্ত শর্মা, মোহাম্মদ শামি, উমেশ ইয়াদাভরা।

দক্ষিণ আফ্রিকার মতো পেস বোলিং নির্ভর দল এর আগে কখনোই প্রতিপক্ষের ফাস্ট বোলারদের কাছে এমনভাবে হেরে যায়নি।

এমন ইতিহাস মনে রেখেই খেলার প্রস্তুতি দু’পক্ষের।

একে//

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি