ঢাকা, শুক্রবার   ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, || অগ্রাহায়ণ ১৯ ১৪২৮

মানুষ ভাবত পুলিশ, পুলিশ ভাবত দুদক কর্তা!

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ২৩:২৬, ১২ নভেম্বর ২০২১

তৌহিদ হোসেন

তৌহিদ হোসেন

সবার কাছে তিনি পরিচিত পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে। সবাই যেন বিশ্বাস করে এজন্য পুলিশের ইউনিফর্মে নিয়মিত ফেসবুকে ছবিও দিতেন। কখনও বন্দুক হাতে, কখনও ওয়াকিটকি হাতে ছবি তুলেছেন নিজেকে পুলিশ প্রমাণের জন্য। আবার পুলিশের কাছে তিনি পরিচিত দুদক কর্মচারী হিসেবেই। কেউবা আবার চেনেন এনএসআই কর্মচারী হিসেবেও। 

কিন্তু এসবের কোনোটিই ঠিক নয়। আসলে তিনি একজন বড় মাপের ‘প্রতারক’। প্রতারণার অভিযোগে অবশেষে ধরা খেলেন পুলিশেরই জালে। শুক্রবার (১২ নভেম্বর) বিকেলে চুয়াডাঙ্গা বড় বাজার থেকে এই প্রতারককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন বলেই জানিয়েছে পুলিশ। 

গ্রেপ্তারকৃত ওই প্রতারকের নাম তৌহিদ হোসেন। তিনি চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার গাইদঘাট গ্রামের মিল্টন হোসেনের ছেলে। তৌহিদের বিরুদ্ধে এক নারী প্রতারণার অভিযোগে মামলা করেছেন। পুলিশ বাদী হয়ে আরেকটি মামলা করেছে।

জানা গেছে, তৌহিদ হোসেন দীর্ঘদিন ধরেই নিজেকে পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে আসছিলেন। এই পরিচয় দিয়ে তিনি মানুষের কাছ থেকে হাতিয়ে নিয়েছেন বিপুল পরিমাণ অর্থ। জিজ্ঞাসাবাদে তৌহিদ হোসেন জানান, এক নারীকে চুয়াডাঙ্গা থানার পুলিশ বলে পরিচয় দেন তিনি। তাকে বিশ্বাস করানোর জন্যই থানার সামনে ঘোরাফেরা করছিলেন।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন বলেন, ‘তৌহিদ হোসেন নিজেকে কখনো পুলিশ, কখনো এনএসআই হিসেবে পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করে থাকেন। প্রতারণার সুবিধার জন্য তিনি ফেসবুকে এসব ছবি ব্যবহার করেন। বিভিন্ন বাহিনীর সদস্য সেজে মূলত টাকা হাতিয়ে নেয়াই ছিল তার কাজ। শনিবার তাকে চুয়াডাঙ্গা আদালতে সোপর্দ করা হবে।’

এনএস//


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি