ঢাকা, রবিবার   ১৩ জুন ২০২১, || জ্যৈষ্ঠ ২৯ ১৪২৮

শিশু অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবি, আটক ২ 

নোয়াখালী প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৬:২৬, ১৭ মে ২০২১

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী থেকে এক শিশুকে অপহরণ করে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ চাওয়ার অভিযোগে দুই অপহরণকারীকে আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃত, মো. রাসেল, উপজেলার ৫নং অম্বরনগর ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মধ্য অম্বরনগর গ্রামের চৌকিদার বাড়ির জহির চৌধুরীর ছেলে ও মাসুদ আদনান,পিতা-মৃত আবুল কাশেম, বাঞ্চানগর জেলা-লক্ষীপুর। এ ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা করেছে ভুক্তভোগী পরিবার।

এর আগে, গতকাল রোববার (১৬ মে) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার অম্বরনগর গ্রাম থেকে এই অপহরণের ঘটনা ঘটে। পুলিশ বলছে, অপহরণের ১০ ঘন্টার মধ্যে অপহৃত শিশুকে লক্ষীপুর সদর থানা এলাকার বাঞ্চানগর গ্রামের বেড়িবাঁধের পাশে থেকে অপহৃত শিশুকে উদ্ধার করে এবং একই সাথে অপহরণকারীকে আটক করে পুলিশ।

সোমবার দুপুরে নোয়াখালী পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে মিট দ্যা প্রেস এসব তথ্য জানান, পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, অপহৃত নাজমুল হাসান মেজবা অপহরণকারীর দূর সম্পর্কের আত্মীয়। গতকাল রোববার(১৬ মে) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে অপহরণকারী রাসেল সোনাইমুড়ী উপজেলার অম্বরনগর গ্রামে অপহৃত শিশুর বাড়ির সামনে এসে ভিকটিমের জেঠাতো ভাই শামিমকে জানায় শিশু মেজবাকে সে অনেকদিন যাবত দেখছে না। তাকে এক নজর দেখার জন্য বাড়িতে থেকে নিয়ে আসার আবদার করে। পরে মেজবাকে এনে তার কোলে দেওয়া হয়। সে শিশুটিকে সামনের দোকান থেকে কিছু কিনে দেওয়ার বাহনা দিয়ে তাকে নিয়ে পালিয়ে যায়। এরপর অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায় এবং অপহৃত শিশুর মায়ের মোবাইলে ফোন করে ২ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। 

এক পর্যায়ে ভুক্তভোগী পরিবার ঘটনাটি সোনাইমুড়ী থানা পুলিশকে অবহিত করে। অভিযোগ পেয়ে সোনাইমুড়ী থানা পুলিশের একটি দল সোমবার (১৭ মে) ভোর ৫টায় লক্ষ্মীপুর সদর থানার পুলিশের সহায়তায় লক্ষীপুর সদর থানা এলাকার বাঞ্চানগর গ্রামের বেড়িবাঁদের পাশে অপহরণকারীর সহযোগী মাসুদ আদনানের বসত বাড়ির একটি টুপরী ঘর থেকে শিশুটি উদ্ধার করে।
কেআই//


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি