ঢাকা, বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৩:৪৩:২০

Ekushey Television Ltd.

শুভ জন্মদিন মোস্তফা কামাল

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৮:০০ পিএম, ২৯ মে ২০১৮ মঙ্গলবার | আপডেট: ০৬:৩১ পিএম, ৩১ মে ২০১৮ বৃহস্পতিবার

জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক-সাংবাদিক মোস্তফা কামাল বরিশালের আন্ধার মানিক গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ৩০ মে তার জন্মদিন। শুভ জন্মদিন মোস্তফা কামাল। গ্রামের মেঠোপথে ঘুরেফিরে তার শৈশব-কৈশোর কেটেছে। পরে ঢাকায় এসে নানা চড়াই-উৎরাইয়ের মধ্য দিয়ে পথ চলেন তিনি। রাষ্ট্রবিজ্ঞান ও ইংরেজি সাহিত্যে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করেছেন।

গত আড়াই দশক ধরে তিনি নিয়মিত লেখালেখি করছেন। সাহিত্যের প্রায় সব শাখাতেই তার বিচরণ রয়েছে। প্রবন্ধ, নিবন্ধ, গল্প, উপন্যাস, সায়েন্স ফিকশন, টিভি নাটক ছাড়াও শিশু-কিশোরদের জন্য নিয়মিত লিখছেন। তার প্রথম প্রকাশিত ছড়া ‘মেঘনা’। প্রথম উপন্যাস ‘পাপের অধিকার’। প্রথম গল্প ‘বীরাঙ্গনার লড়াই’। প্রথম বিদ্রুপ ও রম্য বই ‘পাগল ছাগল ও গাধাসমগ্র’। প্রথম নাটক ‘প্রতীক্ষার শেষ প্রহর’। প্রথম গবেষণামূলক বই ‘আসাদ থেকে গণঅভ্যুত্থান’। বিশেষ করে ঔপন্যাসিক হিসেবে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন তিনি। তার লেখা সাড়া জাগানো উপন্যাসের মধ্যে রয়েছে ‘অগ্নিপুরুষ’, ‘অগ্নিকন্যা’, ‘জননী’, ‘পারমিতাকে শুধু বাঁচাতে চেয়েছি’, ‘হ্যালো কর্নেল’ প্রভৃতি।

আগামী বইমেলায় প্রকাশিত হবে তার আরেকটি ঐতিহাসিক উপন্যাস ‘অগ্নিমানুষ’। এ পর্যন্ত তার ৯৬টি বই প্রকাশিত হয়েছে। বাংলাদেশের পাশাপাশি কলকাতা থেকেও তার বই প্রকাশিত হয়েছে। সাহিত্যে বিশেষ অবদান রাখায় এ বছর বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১১৯তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে কলকাতায় তাকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়।

দেশের অন্যতম জনপ্রিয় এ কথাসাহিত্যিক-সাংবাদিকের জীবন অভিধানে ‘হতাশা’ শব্দটি নেই। তিনি স্বপ্ন দেখতে পছন্দ করেন। একইসঙ্গে সেই স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিতে অদম্য চেষ্টা করেন। এ কারণেই হয়তো তিনি জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে সাফল্য পাচ্ছেন। তার পেশা সাংবাদিকতা ও নেশা লেখালেখি। সাংবাদিকতা ও লেখালেখি উভয় ক্ষেত্রেই তিনি সমান খ্যাতি অর্জন করেছেন। কলামিস্ট হিসেবেও তার বিশেষ খ্যাতি রয়েছে। তিনি দৈনিক কালের কণ্ঠে ‘সময়ের প্রতিধ্বনি’ ও ‘রঙ্গব্যঙ্গ’ নামে দুটি কলাম লিখছেন।

সাংবাদিক হিসেবে তিনি আফগানিস্তানে যুদ্ধপরবর্তী পরিস্থিতি, নেপালে রাজতন্ত্রবিরোধী গণঅভ্যুত্থান, পাকিস্তানে বেনজীর ভুট্টো হত্যাকাণ্ড ও শ্রীলঙ্কায় তামিল গেরিলা সংকট কভার করে ব্যাপক আলোচিত হন। এছাড়া পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য তিনি ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া, জাপান, মালয়েশিয়াসহ বেশ কয়েকটি দেশ সফর করেন। বর্তমানে তিনি শীর্ষস্থানীয় দৈনিক কালের কণ্ঠে নির্বাহী সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি দুই সন্তানের জনক।

তার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কালের কণ্ঠের সহ-সম্পাদক দীপংকর দীপক বলেন, তিনি নিভৃতচারী, নিসর্গচারী, উদারপন্থী ও শেকড় সন্ধানী একজন লেখক ও সাংবাদিক। ব্যক্তিজীবনে তিনি অত্যন্ত পরিশীলিত, আধুনিকমনা, সংস্কারবিরোধী, বন্ধুসুলভ, পরোপকারী, স্বল্পভাষী, ধৈর্য্যশীল ও স্বাধীনচেতা। তার সাহিত্যকর্মে মানবিক মূল্যবোধ, শ্রেণিচেতনা ও সমাজ বাস্তবতা জীবন্ত উপাদান হয়ে পরিস্ফুটিত হচ্ছে। পঠনে, বোধে ও বিশ্লেষণে তার সাহিত্যধারা ও সাহিত্যচেতনা সত্যিকারার্থে নতুনত্ব, ভিন্নতা ও উত্তরাধুনিকতার গুণে অনন্য। আমার হৃদয়ের অন্তরস্থল থেকে তাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা।

এসএইচ/



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি