ঢাকা, শনিবার   ২২ জুন ২০২৪

ভারতের কাকদ্বীপে উদ্ধার ১২ জেলে, ১০ ট্রলারসহ নিখোঁজ শতাধিক

কুয়াকাটা ও কলাপাড়া প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৯:১৪, ২০ আগস্ট ২০২২

বঙ্গোপসাগরে ভারতীয় জলসীমায় কুয়াকাটার মহিপুর এলাকার এফবি স্বাধীন নামের একটি মৎস ট্রলার ১২ জেলেসহ নিমজ্জিত হয়। শুক্রবার বিকেলে ট্রলারটি ডুবে যাওয়ার পরপরই ১২ জেলের সবাইকে ভারতীয় জেলেরা উদ্ধার করে কাকদ্বীপে নিয়ে যান। সেখানে স্থানীয় পুলিশের কাছে তাদের হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে ডুবে যাওয়া ট্রলারসহ মাছধরার সরঞ্জামের কোনো হদিস নেই। 

এছাড়া কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে দেড় শতাধিক জেলেসহ ১২টি মাছধরা ট্রলার ডুবির খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। অধিকাংশ জেলে উদ্ধার হলেও ১০ ট্রলারসহ কোনো মালামালই উদ্ধার করা যায়নি। ওইসব ট্রলারের শতাধিক জেলে এখনো নিখোঁজ রয়েছেন। 

শনিবার দুপুরে সুন্দরবনের দুবলা এবং সাগরে ভাসমান জীবিত এক জেলেকে উদ্ধারের মধ্য দিয়ে ১৩ জেলে উদ্ধারের খবর রয়েছে।

এদিকে শুক্রবার দুপুর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত বঙ্গোপসাগরের বিভিন্ন পয়েন্টে ১২টি মাছধরা ট্রলার ডুবির খবর নিশ্চিত করেছেন আলীপুর-কুয়াকাটা মৎস্য আড়তদার মালিক সমিতির সভাপতি আনছার উদ্দিন মোল্লা ও মহিপুর মৎস্য আড়ৎদার মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ রাজা। 

ডুবে যাওয়া ট্রলারগুলো হচ্ছে- এফবি মা’মণি-০৩, এফবি সাইফুল, এফবি আল মামুন, এফবি আশ্রাফুল, এফবি নুরবানু, এফবি কুলসুম, এফবি মরিয়ম, এফবি রফুসহ নামবিহীন আরও চারটি ট্রলার। এতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকা বলে উল্লেখ করেছেন আড়ৎদার মালিক সমিতির নেতা মো. আনছার উদ্দিন মোল্লা। এসব ট্রলারে শতাধিক জেলে নিখোঁজ রয়েছেন বলেও তিনি উল্লেখ করেছেন।

এদিকে এফবি স্বাধীন ডুবে যাওয়ার পর ভারতীয় জেলেদের হাতে ১২ জেলের সকলে উদ্ধার হওয়া প্রসঙ্গে ওই ট্রলারের মাঝী মো. ইব্রাহীম ভারতের কাকদ্বীপ থেকে মোবাইল ফোনে জানিয়েছেন, শুক্রবার বিকেলে ভারতের জলসীমানায় প্রবল ঢেউয়ের কবলে পড়ে তাদের ট্রলারটি ডুবে যায়। 

এসময় ঝড়ের কবলে পড়ে বাংলাদেশের আরও ১৬টি ট্রলার নিমজ্জিত হয় বলে দাবি করেন মাঝী ইব্রাহীম। তিনি জানান, এসময় অধিকাংশ জেলেদের উদ্ধার করে ভারতীয় জেলেরা সে দেশের পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে। 

তবে এসব ট্রলার দেশের কোন এলাকার, তা নিশ্চিত করে বলতে পারেননি জেলে ইব্রাহীম। 

নিখোঁজ ট্রলারগুলো হচ্ছে- আলীপুরের এফবি আবদুল্লাহ, এফবি জাবের, এফবি মা’মণি, এফবি আব্দুল্লাহ (২), এফবি মায়ের দোয়া (০১), এফবি মায়ের দোয়া, এফবি ইয়াসমিন, এফবি রাকিবুল, এফবি ওবায়দুল, এফবি জলিল। 

এদিকে, পায়রা সমুদ্র বন্দরে তিন নম্বর সর্তকতা সংকেত অব্যাহত রয়েছে। সেইসঙ্গে ঝড়ো বাতাস বইতে থাকায় সহস্রাধিক মাছধরা ট্রলার ইতিমধ্যে কুয়াকাটা সংলগ্ন শিববাড়িয়া নদীতে আশ্রয় নিয়েছে। 

অন্যদিকে নিখোঁজ জেলে পরিবারে চলছে কান্নার রোল। পরিবারের কর্মক্ষম মানুষটির সন্ধান পেতে আড়ৎঘাটসহ বিভিন্ন স্থানে ছুটছেন স্বজনরা। 

কলাপাড়ার নিজামপুর কোস্টগার্ড স্টেশনের কন্টিজেন্ট কমান্ডার সেলিম মন্ডল জানান, সাগরে ট্রলার ডুবির খবর পেয়ে তাদের একাধিক টিম উদ্ধার অভিযানে নেমেছে। 

এনএস//


Ekushey Television Ltd.


Nagad Limted


© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি