ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০৫ আগস্ট ২০২১, || শ্রাবণ ২০ ১৪২৮

বাজেটের মূল লক্ষ্য হওয়া উচিৎ প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সুরক্ষা (ভিডিও)

মেহেদী হাসান

প্রকাশিত : ১২:২৩, ২ মে ২০২১

আগামী বাজেটের মূল লক্ষ্য হওয়া উচিৎ চিকিৎসা সেবা এবং প্রান্তিক জনগোষ্ঠী সুরক্ষা। এ কথা বলছেন অর্থনীতিবিদরা। তাদের মতে বরাদ্দ বাড়াতে হবে সংক্রমণ রোধ, দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে সহায়তা এবং প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্থান ঘনিষ্ঠ খাতগুলোতে। আর যথাযথ ব্যয় ব্যবস্থাপনায় গুরুত্ব দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

একদিকে করোনায় বিপর্যস্ত অর্থনীতি অন্যদিকে রাজস্ব আদায়ে ধীর গতি। এমন পরিস্থিতিতে ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণার প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার। এরই মধ্যে বাজেট সমন্বয় কাউন্সিলের সভা করেছেন অর্থমন্ত্রী। ছয় লাখ কোটি টাকার বেশি আকারের বাজেটের রূপরেখা দিয়েছেন তিনি।

২০২০-২১ অর্থবছরের মূল বাজেটে প্রবৃদ্ধি লক্ষ্য ছিলো ৮ দশমিক ২ শতাংশ। তবে তা যে অর্জন হবে না, সেটা এখন অনেকটাই স্পষ্ট। এমন প্রেক্ষাপটে আসছে বাজেটে এ প্রবৃদ্ধি লক্ষ্যমাত্রা থাকতে পারে সাত শতাংশের ঘরে। পাশাপাশি করোনার ধাক্কা সামাল দেয়া এবং প্রান্তিক ও নিম্নআয়ের জনগোষ্ঠীকে সুরক্ষার চেষ্টাও থাকছে বাজেটে। 

সংকটের এই সময়ে বাজেট ঘাটতি দাঁড়াতে পারে দু’লাখ কোটি টাকারও বেশি, যা স্বাভাবিক মানলেও লক্ষমাত্রাগুলো যেন বাস্তবসম্মত হয় সেই তাগিদ অর্থনীতিবিদদের। 

অর্থনীতিবিদ ড. আহসান এইচ মনসুর বলেন, বাজেটটা হওয়া উচিত বাস্তবসম্মত। যে বাজেটটা বাস্তবায়ন যোগ্য এবং যে বাজেটের রাজস্বের যে লক্ষ্যমাত্রা সেটাও যেন অর্জন করা সম্ভব হয়।
 
পাশাপাশি গুরুত্ব দিতে হবে স্বাস্থ্য খাতে।   

ড. আহসান এইচ মনসুর আরও বলেন, করোনা সংক্রমণ রোধের জন্য অবশ্যই ব্যবস্থা নিতে হবে। সেটা হতে হবে একদিকে ভ্যাকসিনেশন প্রোগ্রামকে ব্যাপকভাবে বিস্তৃতি ঘটাতে হবে। এটা ছাড়া আমাদের হসপিটাল ব্যবস্থাকে অনেক সম্প্রসারিত করতে হবে যাতে ভারতের মতো একটা অবস্থার সৃষ্টি না হয়।

অর্থনীতিবিদ ড. নাজনীন আহমেদ বলেন, অর্থ বরাদ্দ রেখে সেটি স্বাস্থ্যখাতের সুযোগ-সুবিধার কাজে লাগাতে হবে। তবে জরুরি তহবিল হিসেবে রাখতে হবে একটি অংশ যেটি যেকোন জরুরি অবস্থা মোকাবেলা করার জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে।

করোনার সংক্রমণের বিরূপ প্রভাবে সবচেয়ে বেশি বিপাকে দরিদ্র জনগোষ্ঠী ও ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা। তাদেরকে রক্ষার চ্যালেঞ্জটাও নিতে হবে। 

ড. নাজনীন আহমেদ বলেন, কর্মসংস্থান সৃষ্টি, দরিদ্র মানুষকে সহায়তা, ক্ষুদ্র ও মাঝারী উদ্যোক্তাদের উদ্যোগগুলোকে সচল রাখা- এই লক্ষ্যগুলোই হবে এ বাজেটের বড় চ্যালেঞ্জ। 

সব কিছু ঠিক থাকলে আগামি ৩ জুন সংসদে নতুন অর্থবছরের বাজেট পেশ করবেন অর্থমন্ত্রী।

ভিডিও-

এএইচ/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি