ঢাকা, শনিবার   ১৩ এপ্রিল ২০২৪

গ্রুপ পর্ব শেষে বোলিংয়ে সেরা যারা

প্রকাশিত : ১৮:৩৬, ৭ জুলাই ২০১৯ | আপডেট: ২১:০৫, ৭ জুলাই ২০১৯

শনিবার অস্ট্রেলিয়া-দক্ষিণ আফ্রিকার ম্যাচ দিয়ে শেষ হলো দ্বাদশ বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব। এ পর্ব শেষে সেমি-ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে ভারত, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড ও স্বাগতিক ইংল্যান্ড। আর এ গ্রুপ পর্বে যেমন ব্যাটসম্যানদের পারফরম্যান্স ছিল নজরকাড়া, তেমনি বোলারদেরও।

যদিও প্রথম পর্ব শেষে ২০ কিংবা তার বেশি উইকেট পেয়েছেন মাত্র দুইজন। দুজনেই বাঁহাতি পেসার। তারা হলেন- অজি পেস তারকা মিচেল স্টার্ক এবং টাইগার কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান। এদের তালিকায় ঢোকার অপেক্ষায় আছেন আরও বেশ কয়েকজন। আর এক আসরে সবচেয়ে বেশি উইকেট নেয়ার নতুন রেকর্ডের পথে আছেন স্টার্ক।

তাহলে আসুন দেখে নেয়া যাক,  গ্রুপ পর্ব শেষে সেরা বোলারের তালিকায় রয়েছেন কারা...

১. মিচেল স্টার্ক (অস্ট্রেলিয়া)

গত ২০১৫ বিশ্বকাপের টুর্নামেন্ট সেরা তিনি। এবারও এগিয়ে যাচ্ছেন সে পথেই। দুর্দান্ত ছন্দে থাকা এ পেসার এরইমধ্যে  ১৬.৬১ গড়ে পেয়েছেন ২৬ উইকেট। দুইবার করে চার ও পাঁচ উইকেট পেয়েছেন তিনি। ছুঁয়েছেন কিংবদন্তী গ্লেন ম্যাকগ্রা`র রেকর্ড। ২০০৭ সালে ২৬টি উইকেট নিয়েছিলেন অজি কিংবদন্তী। এক আসরে এটাই ছিল সর্বাধিক। এবার হয়তো সে রেকর্ডকে পেছনে ফেলতে যাচ্ছেন স্টার্ক।

২. মোস্তাফিজুর রহমান (বাংলাদেশ)

শুরুর দিকে ততটা বিধ্বংসীরূপে দেখা না গেলেও টুর্নামেন্ট যতো গড়িয়েছে ততোই বোলিংয়ে ধার বেড়েছে মোস্তাফিজের। শেষ দুই ম্যাচে পেয়েছেন পাঁচ উইকেট করে। এর আগে ১৯৭৫ সালের বিশ্বকাপে টানা দুই ম্যাচে পাঁচ উইকেট নিয়েছেন অস্ট্রেলীয় পেসার গ্যারি গিলমোর। যাইহোক গ্রুপ পর্ব পর্যন্ত খেলেই সবমিলিয়ে ২০টি উইকেট নিয়েছেন কাটার মাস্টার। তবে কিছুটা খরুচে ছিলেন তিনি। ওভার প্রতি রান দিয়েছেন ৬.৭০ করে। তবে বাংলাদেশ সেমিতে না যাওয়ায় তাই স্বভাবতই মন খারাপ দ্য ফিজ-এর।

৩. লকি ফার্গুসন (নিউজিল্যান্ড)

শুরু থেকেই দারুণ ধারাবাহিক বোলিং করে গেছেন কিউই পেসার লকি ফার্গুসন। নিউজিল্যান্ডের বোলিং নেতৃত্বই দিয়েছেন এ তরুণ। ৭ ম্যাচ খেলে ১৮.৫৮ গড়ে পেয়েছেন ১৭ উইকেট। ওভার প্রতি রানও দিয়েছেন পাঁচের কম। নিঃসন্দেহে কিউইদের সাফল্যের অন্যতম নায়ক এ পেসার।

৪. জাসপ্রিত বুমরাহ (ভারত)

দীর্ঘদিন ধরেই ওয়ানডেতে বিশ্বের সেরা বোলার জাসপ্রিত বুমরাহ। বিশ্বকাপেও সে ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছেন ভারতীয় এই পেসার। ফার্গুসনের সমান ১৭টি উইকেট পেয়েছেন তিনিও। তবে গড়ে কিছুটা পিছিয়ে, ১৯.৫২। এখন পর্যন্ত কোনো ম্যাচে পাঁচ উইকেট না নিলেও নিয়মিত প্রতিপক্ষ শিবিরে তোপ দাগিয়েছেন অর্থডক্স এ পেসার।

৫. মোহাম্মদ আমির (পাকিস্তান)

শুরুতে বিশ্বকাপ দলে না থাকলেও নানা নাটকীয়তার পর হুট করেই দলে জায়গা পান মোহাম্মদ আমির। দুর্দান্ত বোলিং করে পাকিস্তানকে বিশ্বকাপের সেমি-ফাইনালের পথেই রেখেছিলেন। দুর্ভাগ্যবশত সেরা চার থেকে বাদ পড়ে দলটি। তবে ২১.০৫ গড়ে ১৭টি উইকেট নিয়ে আবারো নিজের জাত চিনিয়েছেন বাঁহাতি এ পেসার। এ বিশ্বকাপেই ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম পাঁচ উইকেট পেয়েছেন তিনি।

ফার্গুসন, বুমরাহ ও আমির ছাড়াও সমান ১৭টি উইকেট নিয়েছেন ইংল্যান্ডের জোফরা আর্চার। আমিরের মতো তিনিও শুরুতে বিশ্বকাপ দলে ছিলেন না। তবে সেরা পাঁচে না থাকলেও নজর কেড়েছেন পাকিস্তানের তরুণ পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদি। মাত্র পাঁচ ম্যাচেই পেয়েছেন ১৬টি উইকেট। গড়েও সবার সেরা। ১৪.৬২ গড়ে উইকেটগুলো নিয়েছেন ১৯ বছর বয়সী এই বাঁহাতি। এছাড়া এবারের বিশ্বকাপে এক ম্যাচেই সর্বোচ্চ সংখ্যক উইকেট শিকারি (৬টি) একমাত্র তিনিই।

এনএস/এসি

 


Ekushey Television Ltd.


Nagad Limted


© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি