ঢাকা, রবিবার   ১৯ মে ২০২৪

যেভাবে ফাইনালে এলো ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড

প্রকাশিত : ১৪:০৫, ১৪ জুলাই ২০১৯

ক্রিকেট বিশ্বের নতুন রাজা নির্ধারণে আজ রোববার নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি ইংল্যান্ড। বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে ৩টায় শুরু হবে বিশ্বকাপ ক্রিকেটের শিরোপা নির্ধারণী লড়াই।

এর আগে তিনবার ফাইনালে খেললেও শিরোপার স্বাদ পায়নি ইংলিশরা। তাই ট্রফি ভিন্ন কিছুই চিন্তা করছে না তারা। অপরদিকে, গতবার রানার্সআপ হলেও এবার শিরোপাতেই চোখ কিউইদের।

চলতি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ভারতকে ১৮ রানে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে নিউজিল্যান্ড। আর অস্ট্রেলিয়াকে ৮ উইকেটে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করে স্বাগতিক ইংল্যান্ড।

টুর্নামেন্টের প্রথম পর্বে ৯ ম্যাচের মধ্যে ৬ ম্যাচ জিতেছে ইংল্যান্ড। তারা হেরেছে ৩ ম্যাচ। ফলে ১২ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের ৩য় স্থানে থেকে সেমিতে যায় ইংলিশরা।

আর নিজেদের ৯ ম্যাচের মধ্যে ৫টিতে জয় পেয়েছিল নিউজিল্যান্ড। তারাও হেরেছে ৩টি ম্যাচ। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচটি বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছিল। ফলে ১১ পয়েন্ট নিয়ে ৪র্থ স্থানে থেকে সেমি নিশ্চিত করে কিউইরা।   

টুর্নামেন্টে এই দুই দলের মধ্যে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ইংল্যান্ডের জো রুট। ৫৪৯ রান নিয়ে টুর্নামেন্টে রান সংগ্রাহকের তালিকায় ৪র্থ স্থানে রয়েছেন তিনি। আর পঞ্চম স্থানে থাকা নিউজিল্যান্ডের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান কেন উইলিয়ামসনের সংগ্রহ ৫৪৮।

এছাড়া, ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকও ইংলিশ তারকা জেসন রয়। বাংলাদেশের বিপক্ষে তিনি করেছেন ১৫৩ রান। আর নিউজিল্যান্ডের তারকা ক্রিকেটার কেন উইলিয়ামসন ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে করেছেন ১৪৮ রান।

শুধু তাই নয়, দুই দলের মধ্যে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারীও ইংল্যান্ড দলের বোলিং অলরাউন্ডার জফরা আর্চার। ১৯ উইকেট নিয়ে টুর্নামেন্টে তিনি রয়েছেন ৩য় স্থানে। আর ১৮ উইকেট শিকারী নিউজিল্যান্ডের লকি ফার্গুসন রয়েছেন ৪র্থ স্থানে।

তবে এই দলের তারকাদের মধ্যে সেরা বোলিং খেতাব ইংলিশ তারকা মার্ক উড ও নিউজিল্যান্ডের জিমি নিশামের। মার্ক উড ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১৮ রান দিয়ে নিয়েছেন ৩ উইকেট। আর জিমি নিশাম আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটিতে ৩১ রান দিয়ে নিয়েছেন ৫ উইকেট।

সার্বিক বিচারে বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসরের এই লড়াইয়ে ইংলিশদেরই শ্রেষ্ঠত্ব দেখছেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক রিকি পন্টিং। অস্ট্রেলিয়া দলের বর্তমান সহকারী কোচের দৃঢ় বিশ্বাস, ইয়ন মরগানদের হাতেই উঠতে যাচ্ছে এবারের বিশ্বকাপ।

‘আমার মনে হয় ইংল্যান্ডই জিতবে। টুর্নামেন্টের শুরুতেই বলেছিলাম ওদের হারাতে যে কোনও দলের জন্যই কঠিন হবে। প্রথম থেকেই ওদের ফেভারিট বলে রেখেছিলাম, এখন তো আরও বেশি করে বলছি।’

তবে নিউজিল্যান্ডের প্রশংসাও করেছেন অস্ট্রেলিয়ার হয়ে তিনবার বিশ্বকাপ জেতা পন্টিং। বলেছেন, পরপর দুটি বিশ্বকাপ ফাইনাল খেলা চাট্টিখানি কথা নয়। ফাইনাল খেলা লোকের অভাব নেই ওদের দলে। সেই অভিজ্ঞতা অবশ্যই কাজে দেবে। তবে এই ইংল্যান্ড দলের যা ক্ষমতা, তাতে মনে হয় না নিউজিল্যান্ড পেরে উঠতে পারবে।

যাইহোক, এবার নতুন ইতিহাস লিখতে চাইবেন ইয়ন মরগান ও কেন উইলিয়ামসনরা। তবে শেষ হাসিটা কে হাসবে, সেটা দেখার জন্য অপেক্ষা করতে হবে আরও কয়েক ঘণ্টা।


Ekushey Television Ltd.





© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি