ঢাকা, বুধবার   ১৭ জুলাই ২০১৯

বাংলাদেশের হয়ে ইংলিশদের হারাতে চাই: স্টিভ রোডস

 প্রকাশিত: ২১:০১ ৭ জুন ২০১৯   আপডেট: ১৩:৩৩ ৮ জুন ২০১৯

বিশ্বকাপের ১২তম ম্যাচে আগামীকাল ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হবে টাইগাররা। বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৩টায় কার্ডিফে অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচটি। কার্ডিফ মানেই যেন টাইগারদের জন্য আশীর্বাদ। কেননা, ম্যাচ কম হলেও সবকটিতে জয় পেয়েছে মাশরাফিরা। এর আগে দুটো ম্যাচ খেলে তারা দুটোতেই জয়লাভ করেছে। ২০০৫ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঐতিহাসিক জয় আর ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে।

২০১৫ সালের বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রধান কোচ হিসেবে ছিলেন চন্দ্রিকা হাতুরুসিংহে আর এবারের দ্বাদশ আসরে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন সাবেক ইংলিশ ক্রিকেটার স্টিভ রোডস।

বিবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে স্টিভ রোডস বলেন, আমি আপাদমস্তক ইংলিশ হলেও বাংলাদেশের হয়ে তাদের হারাতে চাই। যদিও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলার অনুভূতি আমি এখনো জানি না। তারা হট ফেভারিট। আর আমি আন্ডারডগ থাকতেই পছন্দ করি। হারানোর কিছু নেই। আর যদি জিতে যাই তাহলে সেটা বড় দলের কাছ থেকে কোন কিছু ছিনতাই করে নেয়ার মতো ব্যাপার।

বাংলাদেশের হেড কোচ হিসেবে স্টিভ রোডসের নাম যখন ঘোষণা করা হয়, অনেকেই কপাল কুঁচকেছিলেন। অথচ সেই রোডসই ধীরে ধীরে হয়ে উঠছেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের গূরুত্বপূর্ণ চরিত্র। এ তার সময়ে ২২ ওয়ান্ডেতে বাংলাদেশ জিতেছে ১৪টিতে আর প্রথম কোন ত্রিদেশীয় সিরিজ জিতে তো ইতিহাসেই নাম লিখিয়ে ফেলেছেন সাবেক এই ইংলিশ ক্রিকেটার।

বাংলাদেশের প্রধান এ কোচ বলেন, আমি হয়তো তালিকার নিচের দিকেই ছিলাম। অন্যরা দায়িত্ব নেয়নি বলে আমার কপাল খুলেছে। আমিও শুরুতে ভালো কোচ ছিলাম না। ধীরে ধীরে আমি পরিণত হয়েছি। তবে ক্লাসরুমের বদলে ক্রিকেট মাঠে থাকলেও চলাফেরায় একেবারেই ধীর স্থির। ক্রিকেটারদের ছাত্রের চেয়ে বন্ধুই মনে করেন বেশি।

রোডস বলেন, বিশ্বকাপ বিশাল ব্যাপার। কিন্তু আমি নিজেকে সবসময় শান্ত রাখছি। কারণ এখানে অন্য যেকোন ওয়ানডে ম্যাচের মতো শেষ পর্যন্ত বেসিকটাই ভালো করতে হয়। খেলোয়াড়দেরও রিল্যাক্স রাখার চেষ্টা করছি, খুব বাড়তি কিছু করছি না। কারণ বেশিরভাগ সময় ক্রিকেটাররা খুব বেশি কিছু করতে গেলেই সমস্যা তৈরি হয়।``

তিনি বলেন, এখানে যেটা ভালো লাগে, সবাই সেরা ফলফলটা চায়, জিততে চায়। আমি জানি বিশ্বকাপে আমার পারফরম্যান্সও মূল্যায়ন হবে। সেটাই নিয়ম। এই দেশে ক্রিকেট নাম্বার ওয়ান। তবে সবাইকে বাস্তববাদী হতে হবে। বাংলাদেশের ভালো সম্ভাবনা আছে, একবার সেমিতে গেলে যেকোন কিছুই হতে পারে বলে মন্তব্য করেন স্টিভ।

বিশ্বকাপে ১০ দলের মধ্যে তিনিই একমাত্র ইংলিশ হেড কোচ। আবার কোচ হিসেবেও এটাই তার প্রথম বিশ্বকাপ। আর সেটাও ইংল্যান্ডের মাটিতেই। এটা ভীষণ গর্বের। খুবই উত্তেজনাকর। আর এ কারণেই আমি নিজেকে প্রতিনিয়ত শান্ত রাখার চেষ্টা করছি বলে মন্তব্য করেন স্টিভ রোডস।

সূত্র: বিবিসি

আই//আরকে

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি

শিরোনাম