ঢাকা, শনিবার   ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ২৩ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

শ্রীলঙ্কাকে উড়িয়ে যুবাদের রেকর্ড জয়

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৮:৫৩ ১৪ নভেম্বর ২০১৯

রান নেয়ার মুহূর্তে শতক হাঁকানো তাওহীদ হৃদয়

রান নেয়ার মুহূর্তে শতক হাঁকানো তাওহীদ হৃদয়

রানের বন্যা ছুটছে তৌহিদ হৃদয়ের ব্যাটে, আর জয়ের আনন্দে ভাসছে টাইগার যুবারা। যেমনটি হলো আজও। হৃদয়ের অনবদ্য শতকে শ্রীলঙ্কাকে উড়িয়ে দিয়ে রেকর্ড জয় তুলে নিল বাংলাদেশ। যাতে টানা দুই ম্যাচ জিতে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল যুবারা। আগের ম্যাচেও ৮২ রানের ইনিংস খেলেন হৃদয়। 

বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) আগে ব্যাট করে তৌহিদ হৃদয়ের শতকে ৩৪০ রানে সংগ্রহ পায় স্বাগতিকরা। জবাবে শ্রীলঙ্কা ১৭৯ রানে গুটিয়ে গেলে ১৬১ রানের বড় জয় পায় বাংলাদেশ। এর ফলে যুব ক্রিকেট ইতিহাসে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সবচেয়ে বড় ব্যবধানের জয়ের নতুন রেকর্ড গড়ল যুবা টাইগাররা।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টস জিতে বাংলাদেশকে আগে ব্যাটিং করার আমন্ত্রণ জানায় শ্রীলঙ্কা। হৃদয়ের শতক এবং মাহমুদুল হাসান জয়, আকবর আলি, তানজিদ হাসান তামিমের অর্ধশতকে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৩৪০ রানের বিশাল সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ। যা যুব ক্রিকেট ইতিহাসে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সংগ্রহ।
    
যদিও এদিন শুরুতেই ওপেনার পারভেজ হোসেন ইমনকে হারিয়ে ফেলে স্বাগতিকরা। তবে দ্বিতীয় উইকেটে জুটি গড়েন তামিম ও জয়। ৫৩ বলে ৬০ রান করে তামিম ফিরলে ভেঙে যায় তাদের ৭৯ রানের জুটি। এরপর তৌহিদ হৃদয়ের সঙ্গে ৪৬ রানের জুটি গড়ে বিদায় নেন জয়ও। কবিন্দ নাদীশানের বলে আউট হওয়ার আগে জয় করেন ৬৪ বলে ৫২ রান।

পঞ্চম উইকেটে গিয়ে বড় জুটি গড়েন সাবেক অধিনায়ক তৌহিদ ও বর্তমান অধিনায়ক আকবর আলি। আকবর ৪৩ বলে ৫২ রান করে ফিরলে ভাঙে তাদের ১০৭ রানের ওই জুটি। তারপর শামিম হোসেনকে নিয়ে ৪৭ রান যোগ করেন হৃদয়। শামিম ফেরেন ১৮ বলে ২১ রান নিয়ে।

এসময়ে ৯১ বল খেলে অনবদ্য এক শতক তুলে নেন ম্যাচ সেরা হৃদয়। শেষতক তার ৯৮ বলের ১২৩ রানের অপরাজিত ইনিংসটি সাজানো ছিল ৮টি চার ও ৬টি ছয়ে। যাতে নির্ধারিত ৫০ ওভারে দলীয় সংগ্রহ দাঁড়ায় ৩৪০ রান। সফরকারীদের পক্ষে দুটি করে উইকেট শিকার করেন নাদীশান ও দিলশান মদুশাঙ্কা। 

জবাবে বড় লক্ষ্য তাড়ায় ব্যাটিংয়ে নেমে দুর্দান্ত শুরু করেন দুই লঙ্কান ওপেনার। দলীয় ৬৪ রানে প্রথম উইকেট হারায় তারা। এরপর থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে সফরকারীরা। তবে কমেনি তাদের রান তোলার গতি। ১১ ওভারের মধ্যেই দলীয় শতরান পূরণ করে শ্রীলঙ্কা। বিপরীতে উইকেটও হারাতে থাকে দলটি।

উড়ন্ত শুরু পাওয়া লঙ্কানদের ইনিংস শেষ পর্যন্ত ৩১.২ ওভারেই থেমে যায় ১৭৯ রানে। ফলে ১৬১ রানের বিশাল ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশের যুবারা।

লঙ্কানদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫০ (৩২ বল) রান আসে পরাণাভিথানার ব্যাট থেকে। এছাড়া মোহাম্মদ সামাজ ২৯, অভিষ্কা পেরেরা ৩০ চামিন্দু পিয়ুমল ১৪ রান করেন। বাংলাদেশের পক্ষে দুটি করে উইকেট নেন তানজীম হাসান সাকিব ও শরিফুল ইসলাম।

এদিকে, রেকর্ড গড়া এই জয়ে সিরিজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল বাংলাদেশ। পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথম ম্যাচটি বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছিল। আগামী ১৭ এবং ১৯ তারিখ অনুষ্ঠিত হবে দু'দলের মধ্যকার বাকি দুটি ম্যাচ।

এনএস/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি