ঢাকা, শনিবার   ০৩ ডিসেম্বর ২০২২

টানা তৃতীয় হার কলকাতার, জরিমানা মরগানের

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৯:২০, ২২ এপ্রিল ২০২১

মরগান ও ধোনি

মরগান ও ধোনি

ইংলিশ বিশ্বকাপজয়ী ক্যাপ্টেন ইয়ন মরগানের কাছে চলতি আইপিএলে সুসময় যেন ধরাই দিচ্ছে না। একের পর এক হারে দল রীতিমত বিপর্যস্ত। প্রশ্ন উঠছে নেতৃত্ব নিয়েও। এরই মাঝে গুণতে হলো জরিমানা। আইপিএলে টানা তৃতীয় হারের ম্যাচে রোহিতের পর এবার জরিমানা গুণেছেন কেকেআর কাপ্তান।

জনপ্রিয় টুর্ণামেন্টটির ১৪তম আসরে মরগান নেতৃত্ব দিচ্ছেন কলকাতা নাইট রাইডার্সকে। জয় দিয়ে শুভসূচনা করলেও এরপর দলটি একে একে তিনটি ম্যাচে হেরেছে। বুধবার (২১ এপ্রিল) একাদশে একাধিক পরিবর্তন এনেও লাভ হয়নি। চেন্নাই সুপার কিংসের দেয়া বড় রান তাড়া করে হারতে হয়েছে ১৮ রানে।

সাকিব-হরভজনকে বসিয়ে নারাইন-নাগরকোটি জুটিকে খেলিয়ে বড় ধরণের ধরাই খেল কলকাতা। ম্যাচে টস হেরে ব্যাট করতে নেমেই তাণ্ডব শুরু করে মহেন্দ্র সিং ধোনির দল। কলকাতার বোলারদের অসহায় বানিয়ে দেদারসে রান তুলতে থাকেন চেন্নাইয়ের ব্যাটসম্যানরা। উদ্বোধনী জুটিতেই রুটুরাজ গাইকোয়াড ও ফ্যাফ ডু প্লেসিস তুলে ফেলেন ১১৫ রান।

১৩তম ওভারে এসে ৪টি ছক্কা ও ৬টি চার হাঁকানো গাইকোয়াড ৪২ বলে ৬৪ রান করে বিদায় নিলেও থামেনি ডু প্লেসিসের তাণ্ডব। ইনিংস শেষ হওয়ার আগপর্যন্ত কলকাতার বোলারদের ধৈর্যের চরম পরীক্ষা নিয়েছেন এই প্রোটিয়া। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৩ উইকেট হারানো চেন্নাই ২২০ রান নিয়ে যখন মাঠ ছাড়ছে ৬০ বল মোকাবেলা করা ডু প্লেসিসের নামের পাশে জ্বলজ্বল করছে ৯৫টি রান! তার অপরাজিত এই ইনিংসে ছিল ৬টি চার ও ৪টি ছক্কার মার।

সাকিবের বদলি হিসেবে সুযোগ পাওয়া নারাইন ৪ ওভারে একটি উইকেট পেলেও দেন ৩৪টি রান। তার চেয়েও খরুচে ছিলেন অজি পেসার প্যাট কামিন্স (৪ ওভারে ৫৮), প্রসিধ কৃষ্ণ (৪ ওভারে ৪৯), আন্দ্রে রাসেল (২ ওভারে ২৭) ও হরভজন সিংয়ের পরিবর্তে একাদশে জায়গা পাওয়া কমলেশ নাগরকোটি (২ ওভারে ২৫)।

পরে জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে কলকাতার ব্যাটিং অর্ডার রীতিমত মুখ থুবড়ে পড়ে। দলীয় ১ রানেই প্রথম উইকেট হারানো দলটি ষষ্ঠ ওভারেই হারিয়ে ফেলে ৫টি উইকেট, ৩১ রান তুলতেই! তবে ষষ্ঠ উইকেটে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন দীনেশ কার্তিক ও আন্দ্রে রাসেল। গড়েন ৮১ রানের জুটি। 

এসময় ২১ বলে ৬টি ছক্কা ও ৩টি চারে অর্ধশতক হাঁকানো রাসেল ২২ বলে ৫৪ করে সাজঘরে ফিরলে ক্রিজে আসেন প্যাট কামিন্স। ২৪ বলে ৪০ রান করে কার্তিক বিদায় নিলেও তাণ্ডব চালান কামিন্স। চার-ছক্কার ফুলঝুরি ঝুটিয়ে ২৩ বলেই অর্ধশতক পূর্ণ করেন এই অজি। 

তবে সতীর্থদের সঙ্গ না পাওয়ায় শেষপর্যন্ত জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারেননি তিনি। ১৯.১ ওভারে কলকাতা অলআউট হয় ২০২ রানে। এতে চেন্নাই পায় ১৮ রানের জয়। ৩৪ বলে ৪টি চার ও ৬টি ছক্কা হাঁকিয়ে ৬৬ রান করে অপরাজিত থাকেন কামিন্স। চেন্নাইয়ের পক্ষে দীপক চাহার ৪টি এবং লুঙ্গি এনগিডি ৩টি উইকেট শিকার করেন।

দুঃস্মৃতির এই ম্যাচের পর মরগানকে জরিমানাও গুণতে হয়েছে। আর তা স্লো ওভার রেট বা ধীর বোলিংয়ের কারণে। আইপিএল কর্তৃপক্ষ এবার স্লো ওভার রেটের বিরুদ্ধে বেশ কড়াকড়ি আরোপ করেছে। আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের বেঁধে দেওয়া নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রতিপক্ষ দলের ইনিংস শেষ করতে ব্যর্থ হওয়ায় ১২ লাখ রুপি জরিমানা করা হচ্ছে অধিনায়কদের। যথারীতি এই শাস্তি আরোপ করা হয়েছে মরগানের ওপরও।

মরগান অবশ্য তার দোষ মেনে নিয়েছেন। তাই কোনো আনুষ্ঠানিক শুনানির প্রয়োজনও পড়েনি। আইপিএল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। সেইসঙ্গে একই ভুল দ্বিতীয় বার হলে আইপিএলের ‘কোড অব কন্টাক্ট’ অনুযায়ী দ্বিগুণ জরিমানা গুণতে হবে তাকে। এছাড়াও দলের বাকি সদস্যদের গুণতে হবে ম্যাচ ফি’র ২৫ শতাংশ জরিমানা। তৃতীয়বার একই ভুল করলে এক ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা-সহ জরিমানা গুণতে হবে ৩০ লাখ রুপি। সেইসঙ্গে দলের বাকি সদস্যদেরও গুণতে হবে ১২ লাখ রুপি কিংবা ম্যাচ ফি’র ৫০ শতাংশ জরিমানা।

মরগানের আগে চলতি আসরে একবার করে জরিমানা গুণেছেন চেন্নাই সুপার কিংসের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি ও মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের অধিনায়ক রোহিত শর্মা।

এনএস/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি