ঢাকা, বুধবার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, || আশ্বিন ৬ ১৪২৮

ডিপিএলে সিনিয়রদের দাপট, শীর্ষে দোলেশ্বর

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৭:৫২, ৫ জুন ২০২১

বহুল প্রতীক্ষিত ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের (ডিপিএল) চলমান আসরে প্রায় তিন রাউন্ডের খেলা শেষে পারফর্মার হিসেবে দাপট দেখাচ্ছেন সিনিয়র ক্রিকেটাররাই। প্রথম রাউন্ডেই আলো ছড়িয়েছিলেন সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিম। পরের রাউন্ডে জ্বলে ওঠেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও। 

এছাড়া অন্যান্য যারা নিজ নিজ দলকে এনে দিচ্ছেন জয়ের রসদ, তাদের প্রায় সবাই-ই পরীক্ষিত পারফর্মার। আবাহনী যেমন শেষ ম্যাচে জয় পেয়েছে জাতীয় দলের তারকা মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের পারফরম্যান্সে। যাতে দুই ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে অবস্থান করছে দলটি। আর তিন ম্যাচে প৫ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে প্রাইম দোলেশ্বের। তবে এতে অবাক নন বিসিবির পরিচালক ও আবাহনী লিমিটেডের কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন।

তিনি বলেন, ‘ডিপিএলে সিনিয়র ক্রিকেটাররা ম্যাচ জেতাবে এটাই স্বাভাবিক। তারা অনেক অভিজ্ঞ। তবে তরুণদের প্রতি আমাদের প্রত্যাশা বেশি। শুধু আবাহনীর কথা বলব না, যত তরুণ আছে সবার কাছেই। আশা করি, টুর্নামেন্ট যত এগোবে ততোই তাদের ভালো পারফরম্যান্স দেখতে পারব এবং তাদের ভালো পারফরম্যান্সে টুর্নামেন্ট আরও জমে উঠবে।’

যদিও আবাহনীর পারফরম্যান্স পুরোপুরি সন্তুষ্ট করতে পারছে না সুজনকে। তিনি বলেন, ‘প্রথম দুইটা ম্যাচই আমাদের জন্য যথেষ্ট কঠিন ছিল। প্রথম ম্যাচটা ডাকওয়ার্থ লুইসে একটু চ্যালেঞ্জিং হয়ে গিয়েছিল। তবে দ্বিতীয় ম্যাচ নিয়ে আমি হতাশ। ভালো উইকেটেও আমরা খুব একটা বড় রান করতে পারিনি। টপ অর্ডার থেকেও সেভাবে কেউ বড় রান করতে পারেনি। আমি বলব, এটা ব্যর্থতাই।’
 
আবাহনীর কোচ বলেন, ‘টি-টোয়েন্টিতে দ্রুত উইকেট হারিয়ে ফেললে রান করা খুব কঠিন। ছেলেরা সেট হয়ে ছোট ছোট ইনিংস খেলে আউট হয়ে যাচ্ছে, এটা উদ্বেগজনক। তবে ছেলেদের বড় ইনিংস খেলার সামর্থ্য আছে। পরের ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াবো বলে বিশ্বাস করি।’ 

সুজন বলেন, ‘পরিস্থিতি সামলাতে হবে। স্ট্রাইক রোটেট করতে হবে। মারার সময় এলে ঠিক বলে মারতে হবে। আমরা যে রকম খেলেছি এর চেয়েও আমরা ভালো দল। জাতীয় দলের বেশিরভাগ ব্যাটসম্যানই আমাদের ব্যাটিং অর্ডারে।’

এনএস/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি