ঢাকা, সোমবার   ২৫ জানুয়ারি ২০২১, || মাঘ ১১ ১৪২৭

ক্যানবেরায় কোহলিদের সম্মান রক্ষা

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৯:০৩, ২ ডিসেম্বর ২০২০ | আপডেট: ১৯:২২, ২ ডিসেম্বর ২০২০

সিডনিতে পর পর দুটো ম্যাচ হেরে আগেই ওয়ানডে সিরিজ হেরে বসে টিম ইন্ডিয়া। আজ বুধবার ক্যানবেরায় তৃতীয় ও শেষ ম্যাচটি তাই নিয়ম রক্ষার হলেও অবশেষে জয়ের মুখ দেখল কোহলিরা। মানরক্ষার ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াকে ১৩ রানে হারালো সফরকারীরা। ডনের দেশে একদিনের সিরিজে হোয়াইটওয়াশ থেকে বাঁচল কোহলির দল। 

এদিন ৩০৩ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে শুরুতেই মার্নাস লাবুশানেকে প্যাভিলিয়নের পথ দেখান একদিনের ক্রিকেটে অভিষেক হওয়া নটরাজন। আর সিডনিতে টানা দুই ম্যাচে সেঞ্চুরি করা স্টিভ স্মিথকে ৭ রানে ফেরান শার্দুল ঠাকুর। তবে ৮২ বলে ৭৫ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলেন অজি অধিনায়ক অ্যারোন ফিঞ্চ। 

মাঝের দিকে হেনরিকস (২২), গ্রিন (২১), ক্যারে (৩৮) বড় রান তুলতে না পারলেও এদিন ব্যাট হাতে ফের ঝড় তোলেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। যদিও শেষ পর্যন্ত ৩৮ বলে ৫৯ রান করে বুমরাহর বলে বোল্ড হন ম্যাক্সি।

এরপরও অস্ট্রেলিয়াকে জয়ের পথে এগিয়ে নিতে থাকেন অ্যাস্টন আগার। কিন্তু ভারতকে ম্যাচে ফেরালেন সেই জশপ্রীত বুমরাহ এবং শার্দুল ঠাকুর। যাতে ২৮৯ রানে অলআউট হয়ে যায় স্বাগতিকরা। আর ১৩ রানে ম্যাচ জিতে নেয় কোহলিরা। সেই সঙ্গে আইসিসি সুপার লিগে প্রথম পয়েন্ট পেল টিম ইন্ডিয়া।

ম্যাচ জয়ের দিনে তিন উইকেট নিলেন শার্দুল ঠাকুর। দুটি করে উইকেট নেন নটরাজন এবং বুমরাহ।

আজ তৃতীয় একদিনের ম্যাচে দলে বেশ কয়েকটি পরিবর্তন আনে টিম ইন্ডিয়া। শামির পরিবর্তে শার্দুল ঠাকুর, মায়াঙ্ক আগরওয়ালের পরিবর্তে ওপেনিংয়ে শুভমান গিল। নভদীপ সাইনির বদলে একদিনের ক্রিকেটে অভিষেক হলো টি নটরাজনের। সেইসঙ্গে যুজবেন্দ্র চাহালের পরিবর্তে খেলেন কুলদীপ যাদব।

ভারতের মান বাঁচানো দুই হিরো জাদেজা ও পান্ডিয়া

এদিন সিরিজ জেতা অস্ট্রেলিয়া দলেও আসে বেশ কয়েকটি পরিবর্তন। চোটের জন্য দলে ছিলেন না নিয়মিত ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার। বিশ্রাম দেয়া হয় প্যাট কামিন্সকে। খেলেননি মিচেল স্টার্কও। এই তিনজনের বদলে ম্যাচে খেলেন ক্যামেরন গ্রিন, অ্যাস্টন আগার ও শন অ্যাবোট।

রাজধানী ক্যানবেরার মানুকা ওভালে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তবে শুরুটা সুখকর হয়নি, কারণ শিখর ধাওয়ান (১৬), শুভমান গিল (৩৩), শ্রেয়াস আইয়ার (১৯), কেএল রাহুল (৫) কেউই বড় রান পাননি এদিন। তবে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি করলেন ৭৮ বলে ৬৩ রান। 

এদিন এই ইনিংস খেলার পথে ২৩ রান করার সঙ্গে সঙ্গেই ওয়ানডে ক্রিকেটে ১২ হাজার রানের মাইলস্টোন ছুঁয়ে ফেলেন কিং কোহলি। কিংবদন্তি শচীন তেন্ডুলকারের থেকে ৫৮টি ইনিংস কম খেলে ওই গণ্ডি ছুঁলেন বিরাট। দ্রুততম হিসেবে একদিনের ক্রিকেটে ১২ হাজার রান করায় রেকর্ড বুকেও নাম তুলে ফেললেন অধিনায়ক। সেইসঙ্গে একদিনের ক্রিকেটে ৪৩টি সেঞ্চুরির মালিককে সেঞ্চুরিহীন থাকতে হলো ২০২০ সালে।

বিরাট আউট হতেই ১৫২ রানে পাঁচ উইকেট পড়ে যায় ভারতের। যাতে চিন্তার সঙ্গে সঙ্গে লজ্জায় পড়ার শঙ্কা জেগে ওঠে টিম ইন্ডিয়ার ড্রেসিংরুমজুড়ে। তবে সেখান থেকেই হার্দিক-জাদেজা জুটি ভারতের রানকে তিনশোর ওপরে তুলে নিয়ে গেলেন। পৌঁছে দেন ৩০২ রানে। 

৭৬ বলে ৯২ রানের অপরাজিত থাকেন ম্যাচ সেরা হার্দিক পান্ডিয়া। তার ইনিংসে ছিলো সাতটি চারের সঙ্গে একটি ছক্কার মার। অন্যদিকে ৫০ বলে ৬৬ রান করে নটআউট থাকলেন সঙ্গী রবিন্দ্র জাদেজা। তার এই ইনিংসে ছিল তিনটি ছক্কার সঙ্গে পাঁচটি চার। যাতে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ষষ্ঠ উইকেটে সর্বাধিক রানের পার্টনারশিপ করে ফেললেন এই জুটি। যার বদৌলতে শেষ পর্যন্ত হোয়াইটওয়াশ থেকে বাঁচল ভারত।

এনএস/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি