ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১৭ জুন ২০২১, || আষাঢ় ২ ১৪২৮

শেষ ওভারে ৪ ছক্কা মেরেও হতাশ কামরুল, শীর্ষে প্রাইম ব্যাংক

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৩:১৬, ১০ জুন ২০২১

প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের সদস্যরা

প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের সদস্যরা

শেষ ওভারে রুবেল হোসাইনকে চার চারটি ছক্কা হাঁকিয়েও জয়ের নাগাল পেলেন না কামরুল ইসলাম রাব্বি। যার ফলে তামিমের প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের কাছে নাটকীয় ম্যাচে মাত্র ৩ রানে হেরে শীর্ষস্থান হারালো প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব।

ডিপিএলে আজ বৃহস্পতিবার সকালে সাভারের ৩ নম্বর মাঠে অনুষ্ঠিত এ ম্যাচে মোহাম্মদ মিঠুনের ফিফটিতে চড়ে প্রাইম দোলেশ্বরের বিপক্ষে ১৫১ রানের টার্গেট ছুঁড়ে দেয় তামিমের প্রাইম ব্যাংক। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৫ রান করেন মোহাম্মদ মিঠুন। তাঁর ৫০ বলের এ ইনিংসে ছিল পাঁচটি চার ও একটি ছক্কার মার। এছাড়া এনামুল হক বিজয় ২৯, অলক কাপালি ২৬ ও নাহিদুল ইসলাম করেন ২০ রান। 

দোলেশ্বরের পক্ষে ২টি উইকেট নেন পেসার কামরুল ইসলাম রাব্বি। এছাড়া এনামুল হক জুনিয়র, শামিম হোসাইন, তাইবুর রহমান ও রেজাউর রহমান নেন একটি করে উইকেট।

প্রাইম ব্যাংকের বেঁধে দেয়া লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই উইকেট হারায় প্রাইম দোলেশ্বর। ওপেনার ইমরান-উজ-জামানের স্ট্যাম্প উড়িয়ে দেন কাটার মাস্টার মুস্তাফিজুর রহমান। সাইফ হাসানও বড় স্কোর করতে ব্যর্থ হন এই ম্যাচে। ১১ বলে ১৩ রানের ইনিংস খেলে আউট হন সাইফ। তাঁকে সাজঘরে ফেরান রুবেল হোসাইন।

পরে মার্শাল আইয়ুব ও ফজলে মাহমুদ মিলে কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করলেও বোলারদের কারিশমায় চাপের মুখে পড়েন দুজনেই। প্রাইম ব্যাংককে তৃতীয় উইকেট এনে দেন স্পিনার নাঈম হাসান। ২৪ বলে ২২ রান করা মার্শালকে ফেরান তিনি। তাঁর বিদায়ের পরই কাপালির শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন ২৫ বলে ২১ করা ফজলেও।

৬৩ রানে ৪ উইকেট হারানো দলের ব্যাটিং বিপর্যয়ে চাপ সামলে উঠতে পারেননি তরুণ শামীম হোসেনও (১)। দলের বাকি ব্যাটসম্যানরা যেখানে ইনিংস বড় করতে ব্যর্থ, সেখানে কিছুটা আশা দেখিয়েছিলেন শরিফুল্লাহ। তবে তিনিও সাজঘরে ফিরেন ক্রিজে থিতু হয়েই (১৭ বলে ১৯)। তাঁর বিদায়ের পরের বলটিতেই শরিফুলের ওভারে সাজঘরে ফেরেন ১৩ রান করা ফরহাদ রেজাও। 

দলের স্বীকৃত ব্যাটসম্যান ব্যর্থ হলেও শেষদিকে ব্যাটিংয়ে ঝলক দেখান কামরুল। শেষ ওভারে জয়ের জন্য ৩১ রান প্রয়োজন পড়ে দোলেশ্বরের। রুবেলের করা ওই ওভারের প্রথম পাঁচ বলের মধ্যে চারটিই ছক্কা হাঁকান কামরুল। যাতে শেষ বলে জয়ের সমীকরণ দাঁড়ায় পাঁচ রান! তবে রুবেলের করা সেই বলটি থেকে মাত্র একটি রান নিতে সক্ষম হন কামরুল। অর্থাৎ ১২ বলে ৩৮ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেও শেষ পর্যন্ত জয়ের হিসাব মেলাতে পারেন নি দোলেশ্বরের এই বোলার।

দোলেশ্বরের ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার দিনে বল হাতে বেশ কৃপণ ছিলেন শরিফুল ইসলাম। চার ওভারে ১৫ রান দিয়ে নিয়েছেন দুটি উইকেট। ডটই ছিল ১৪টি! শরীফুলের এমন পারফর্মের দিনে পিছিয়ে থাকেননি কাটার মাস্টার ফিজও। ২৫ রানের বিনিময়ে নেন ৩টি উইকেট, সেইসঙ্গে ছয় ম্যাচে মোট ১৩ উইকেট নিয়ে শীর্ষ উইকেট শিকারি নিজেকে নিয়ে গেছেন ধরাছোঁয়ার বাইরে। তবে এদিন ম্যাচসেরা হন মিঠুনই। 

অন্যদিকে, শেষ ওভারে চারটি ছক্কা হজম করে ২৭ রানসহ মোট ৪৬ রান দিয়েও ২টি উইকেট নেন রুবেল হোসাইনও। আর বোলারদের এমন সাফল্যের দিনে দোলেশ্বরকে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠেছে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব। অন্যদিকে প্রথম হারের স্বাদ পেয়ে দু’য়ে নেমে গেল প্রাইম দোলেশ্বর।

এনএস/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি