ঢাকা, বুধবার   ১২ মে ২০২১, || বৈশাখ ২৮ ১৪২৮

১শ বছরের রেকর্ড ভাঙ্গলেন উইলিয়ামস-তিরিপানো

নাজমুশ শাহাদাৎ

প্রকাশিত : ১৩:২৪, ১৪ মার্চ ২০২১ | আপডেট: ১৩:৩৫, ১৪ মার্চ ২০২১

শেন উইলিয়ামসের শতক উদযাপনে যোগ্য সঙ্গী ডোনাল্ড তিরিপানো

শেন উইলিয়ামসের শতক উদযাপনে যোগ্য সঙ্গী ডোনাল্ড তিরিপানো

প্রথম টেস্টে মাত্র দুই দিনে হারলেও দ্বিতীয় টেস্টেই ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয়ে নিজেদের প্রথম ইনিংসে রানের পাহাড় গড়ে আফগানিস্তান। জবাব দিতে নেমে রশিদ খানদের স্পিনে এবং রান পাহাড়ের চাপে ইনিংস হারের শঙ্কায় পড়ে জিম্বাবুয়ে। তবে লড়াকু ও রেকর্ড গড়া জুটিতে সেই শঙ্কা দূর করে দলের লিড বাড়াচ্ছেন উইলিয়ামস ও তিরিপানো।

হাশমতুল্লাহ শাহিদির প্রথম দ্বিশতক ও অধিনায়ক আসগর আফগানের ১৬৪ রানে ভর করে ৪ উইকেটে ৫৪৫ রানের বিশাল স্কোর গড়ে ইনিংস ডিক্লেয়ার করে স্বাগতিকরা। জবাবে ব্যাট করতে নেমে আফগান স্পিনে ধসে পড়ে ২৮৭ রানে গুটিয়ে যায় জিম্বাবুয়ে। এক প্রান্ত আগলে রেখে দলীয় সর্বোচ্চ ৮৫ রানের ইনিংস খেলেন সিকান্দার রাজা। এছাড়া প্রিন্স মাসভাউরে ৬৫, কেভিন কাসুজা ও তারিসাই মুসাকান্দা দুজনেই ৪১ করে এবং রেজিস চাকাভা ৩৩ রান করেন। আফগান সেরা স্পিনার রশিদ খান ৪টি, আমির হামজা ৩টি এবং সায়েদ শিরজাদ ২টি উইকেট লাভ করেন।

এতে ফলোঅনে পড়ে দ্বিতীয় দফায় ব্যাট করতে নেমেও সেই রশিদ খান ও আমির হামজার স্পিনের মায়াবী বিষে নীল হয়ে ধুঁকতে থাকে জিম্বাবুয়ে। অধিনায়ক শেন উইলিয়ামসের প্রতিরোধের মাঝেও ১৪২ রানেই ৭ উইকেট হারিয়ে ইনিংস হারের প্রহর গুণতে থাকে প্রথম ম্যাচে ১০ উইকেটের বড় ব্যবধানে জয় পাওয়া রোডেশিয়রা।

প্রথম ইনিংসের মতো এ ইনিংসেও জিম্বাবুয়েকে ধসিয়ে দেয়ার ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা পালন করেন আফগান সেরা স্পিনার রশিদ খান। প্রথম ইনিংসে ৪টি উইকেট পেলেও দ্বিতীয় ইনিংসে ঠিকই পাঁচ উইকেট নেয়ার কোটা পূরণ করেছেন মায়াবী এই লেগ স্পিনার। 

তবে ক্রিকেট যে চরম অনিশ্চয়তা এবং মুহূর্তেই মোড় ঘুরিয়ে দেয়া এক উত্তেজনাময় খেলা। ওই খাঁদের কিণারে থেকেও টেলএন্ডার তিরিপানোকে সঙ্গে নিয়ে দুর্দান্ত, লড়াকু এবং রেকর্ড গড়া এক জুটি গড়ে দলের ইনিংস হারের শঙ্কা দূর করার পাশাপাশি লিডও এনে দিয়েছেন ক্যাপ্টেন শেন উইলিয়ামস। 

শুধু তা-ই নয়, শতক হাঁকিয়ে অপরাজিত আছেন ১৩৪ রান নিয়ে। কম যাননি অধিনায়ককে যোগ্য সঙ্গ দেয়া ডোনাল্ড তিরিপানোও। ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট ফিফটি তুলে নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন ম্যাজিক্যাল ফিগারের লক্ষ্যেই। দলের শেষ ভরসা দুজনের এই অবিচ্ছিন্ন জুটিতে এখন পর্যন্ত এসেছে ১৮৫টি মূল্যবান রান। যা অষ্টম উইকেটে দেশের পক্ষে সেরা জুটি এবং একশ বছর আগে অস্ট্রেলিয়ার পিল্লেও ও গ্রেগরির গড়া ১৭৩ রানের জুটির রেকর্ড ভেঙে বিশ্ব টেস্ট ক্রিকেটে সেরা অষ্টম উইকেট জুটির তালিকার দশ নম্বরে ঢুকে পড়া জুটি। ২০১০ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৩৩২ রানের জুটি গড়ে এই তালিকার শীর্ষস্থানে বসে আছেন ইংল্যান্ডের জোনাথন ট্রট ও স্টুয়ার্ট ব্রড।

এদিকে, শুধু একশ বছরের রেকর্ড ভেঙ্গেছেন তা-ই নয়, ৬৩.২ ওভারেই ৭ উইকেট তুলে নেয়া আফগান বোলারদের দারুণভাবে নাস্তানুবুদ করেছে উইলিয়ামস-তিরিপানো জুটি। প্রায় ৭১ ওভার (৪২৫ বল) ধরে উইকেট বঞ্চিত রাখেন রশিদ-হামজাদের।

আবুধাবিতে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচের পঞ্চম দিনে জিম্বাবুয়ের স্কোর এখন ৭ উইকেটে ৩২৬, অর্থাৎ তিন উইকেট হাতে রেখে এখন পর্যন্ত ৬৭ রানের লিড নিয়েছে সফরকারীরা। ২৬০ বল খেলে ১২টি চার ও একটি ছক্কায় ১৩৪ করে অপরাজিত উইলিয়ামস। সঙ্গী তিরিপানোও খেলেছেন প্রায় সমান সংখ্যক বল, তবে ২৫০ বল খেলে ৯৪ রান নিয়ে অপরাজিত থাকা এই টেলএন্ডার মেরেছেন ১৬টি চারের মার।

এনএস/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি