ঢাকা, মঙ্গলবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০১৭ ৩:১০:৫৬

বিএসএফের গুলিতে আহত বাংলাদেশির লাশ উদ্ধার

কুষ্টিয়ার দৌলতপুর সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে আহত এক বাংলাদেশি যুবকের মৃত্যু উদ্ধার করা হয়েছে।  সোমবার ভোরে দৌলতপুর উপজেলার মথুরাপুর বাজারের কোহিনুর ক্লিনিকের সামনে থেকে বুলবুল হোসেন (২৪) নামের ওই যুবকের  লাশ উদ্ধার করা হয়। বিজিবি ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার প্রাগপুর ইউনিয়নের জামালপুর গ্রামের মুবার হোসেনের ছেলে বুলবুল হোসেনের নেতৃত্বে ৭-৮ জন মাদক পাচারকারী অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশ করে। মাদক নিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশকালে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া জেলার হোগলবাড়িয়া থানার নাসিরাপাড়া বিএসএফ ক্যাম্পের টহল দল তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এতে বুলবুল হোসেন কোমরে গুলিবিদ্ধ হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে তার সহযোগীরা তাকে উদ্ধার করে বাংলাদেশে নিয়ে আসে। সোমবার ভোরে দৌলতপুর থানা পুলিশ উপজেলার মথুরাপুর কোহিনুর ক্লিনিকের সামনে থেকে তার গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করে। এ বিষয়ে ৪৭ বিজিবি অধিনস্থ জামালপুর ক্যাম্পের অধিনায়ক নায়েক সুবেদার আব্দুর রাজ্জাক জানান, জামালপুর সীমান্তের ১৫২/১৩ (এস) সীমান্ত পিলার সংলগ্ন ভারত ভূ-খণ্ডের ২শ গজ অভ্যন্তরে বিএসএফের গুলিতে বুলবুল হোসেন নামে বাংলাদেশি এক চোরাকারবারি গুলিবিদ্ধ হয়েছিল জানা যায় । তবে তার কোনো সন্ধান পাওয়া যাচ্ছিল না। এম

জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে যশোরে বাড়ি ঘেরাও

যশোরে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে একটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। শহরের ঘোপ নওয়াপাড়া রোডে মসজিদপাড়ার ওই বাড়িটি রোববার মধ্যরাত থেকে ঘিরে রাখা হয়েছে। সোয়াতের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে রোববার রাত ১০টা থেকে বাড়িটি ঘিরে রাখা হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা যায়। ওই বাড়ির মালিক ও যশোর জেলা স্কুলের শিক্ষক হায়দার আলি জানান, তার বাড়িতে দুটি পরিবার ভাড়া থাকে। তিনি পাশের একটি বাড়িতে ভাড়া থাকেন। রবিবার দিবাগত রাত ৪টার দিকে তিনি তার আত্বীয়ের কাছ থেকে জানতে পারেন, জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে তার বাড়িটি  ঘিরে রাখা হয়েছে। হায়দার আলি বলেন, যতটুকু জানতে পেরেছি বাড়ির পশ্চিম পাশের ভাড়াটিয়া মশিউর রহমান ও তার পরিবারকে সন্দেহ করছে পুলিশ। মশিউর রহমান তার স্ত্রী ও ৩ সন্তান নিয়ে সেখানে ভাড়া থাকেন। তিনি একটি হার্বাল কোম্পানিতে চাকরি করেন। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাইমুর রহমান গণমাধ্যমকে জানান, সোয়াটের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে বাড়িটি ঘিরে রাখা হয়। তাদের ধারণা এই বাড়িতে জঙ্গি অবস্থান করছে।   /আর/এআর  

কুষ্টিয়ায় দু’পক্ষের সংঘর্ষ, নিহত ১

কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দু`পক্ষের সংঘর্ষে শহীদুল ইসলাম হক (৫০) নামে একজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের ৫ জন আহত হয়েছেন। আজ শুক্রবার সকাল ৮টায় মিরপুর উপজেলার ছাতিয়ান ইউনিয়নের ধলসা গ্রামে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা জানায়, গত ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ওই গ্রামে মন্ডল গ্রুপ ও সর্দার গ্রুপের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। স্থানীয় সর্দার গ্রুপের নেতৃত্ব দেন ছাতিয়ান ইউনিয়ন চেয়ারম্যান জসীম উদ্দিন মন্ডল আর মন্ডল গ্রুপের নেতৃত্বে দেন ইউনিয়ন আাওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তাছেল আলী মন্ডল। পূর্ব বিরোধের জের ধরে শুক্রবার সকালে ধলশা বাজারে দুই পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বাধে। এসময় উভয়পক্ষ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে শহীদুল ইসলাম হক নামে সর্দার গ্রুপের এক সমর্থক নিহত হয়। সংঘর্ষের ঘটনায় আহত হয়েছেন রবজেল, রাজাখান, ইবাদদ মণ্ডল, সুজন, রুবেল, সোহাগ ও ফুয়াদ। আহতদের মিরপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মিরপুর থানার ওসি (তদন্ত) আজিজুর রহমান বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। অপ্রিতিকর পরিস্থিতি এড়াতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।   আর/টিকে

শেষ হলো যশোরের শেখ হাসিনা আইসিটি পার্কে চাকরি মেলা

চাকরি প্রত্যাশীদের ব্যাপক অংশগ্রণে শেষ হলো যশোরের শেখ হাসিনা আইসিটি পার্কে চাকরি মেলা। একদিনের জন্য আয়োজিত এ মেলায় চাকরির আশায় হাজার হাজার তরুণ-তরুণী ভিড় জমিয়েছেন। যশোরে উদ্বোধনের অপেক্ষায় থাকা শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক কর্তপক্ষ বৃহস্পতিবার আয়োজন করে একদিনের এই চাকরি মেলা। বৃহস্পতিবার সকালে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক মেলা উদ্বোধন করেন। এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যশোর সদর আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী, হাই-টেক পার্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম, যশোর জেলা প্রশাসক আশরাফ উদ্দিন, পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান প্রমুখ। মেলায় দেখা যায়, দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা চাকরিপ্রার্থীদের কাছ থেকে জীবনবৃত্তান্ত নিয়ে এক স্থানে স্তূপ করে রাখছেন। এ কারণে কোনো সুনির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠানে জীবনবৃত্তান্ত জমা দিতে না পেরে হতাশা প্রকাশ করেছেন যশোরসহ আশপাশের জেলা থেকে আসা বিপুল সংখ্যক চাকরিপ্রত্যাশী। উপচে পড়া ভিড়ের কারণে চাকরিপ্রার্থীরা ঠিকমতো সিভি জমা দিতে পারেননি বলে জানান মেলায় অংশ নেওয়া চাকরি প্রার্থীরা। সকাল ৯টায় মেলা শুরু হওয়ার কথা থাকলেও আটটার কিছু আগে থেকে তরুণ-তরুণীরা টেকনোলজি পার্কে ঢুকতে শুরু করেন। সকাল ৯টার মধ্যে জনারণ্যে পরিণত হয় পার্ক চত্বর। ভবনের অভ্যন্তরে আয়োজিত মেলায় ঢুকতে গিয়ে ফটকের সামনে জনজট তৈরি হয়। পরিস্থিতি সামলাতে হালকা লাঠিচার্জ করে পুলিশ। অবশ্য এসময় পুলিশের এক কর্মকর্তা এজন্য দুঃখ প্রকাশ করে তরুণ-তরুণীদের সুশৃঙ্খলভাবে মেলায় প্রবেশের অনুরোধ করেন। পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান বলেন, এমন ভিড় আশাতীত। আগে যদি জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারকে নিয়ে সভা করা হতো তাহলে আয়োজনটি আরো সুশৃঙ্খল হতো। এছাড়া ভবনের ভেতরে না করে বাইরে এই আয়োজন করা দরকার ছিল। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাইমুল ইসলাম বলেন, শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য দুইশ করে তরুণ-তরুণীকে ভেতরে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে। অন্যরা লাইন ধরে অপেক্ষমাণ। আগতদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, যশোরসহ আশেপাশের জেলা থেকে তারা এসেছেন। সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার সুন্দরবন-সংলগ্ন মুন্সিগঞ্জ থেকে এসেছেন সন্দীপকুমার মল্ল ও তার পাঁচ বন্ধু। চুয়াডাঙ্গার দর্শনা থেকে এসেছেন মিসওয়া উদ্দিন। তারাসহ অনেকেই জানালেন, মেলায় ঢুকতে পারছেন না। কোনো প্রতিষ্ঠানে সিভি জমা দিতে পারছি না। পুলিশ সিভি নিয়ে এক জায়গায় ফেলে রাখছে। তারা জানেন না এভাবে সিভি ফেলে রাখলে কোনো কাজ হবে কিনা। টেকনোলজি পার্কের ইনচার্জ প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ভাবতেই পারিনি এতো বিপুল সংখ্যক চাকরিপ্রার্থী আসবে। জীবন বৃত্তান্তের বিষয়ে তিনি বলেন, এগুলো মেলায় অংশ নেওয়া প্রতিষ্ঠানগুলো বাছাই করে নেবে। মেলায় উপস্থিতির সংখ্যা নিয়ে সন্দিহান ছিলেন শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের প্রকল্প পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম। এজন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, কুয়েট, জবিপ্রবি, এমএম কলেজ, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর পলিটেকনিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত ৩৫টি প্রতিষ্ঠানকে এ পার্কে জায়গা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে একটি প্রতিষ্ঠান কাজও শুরু করেছে। এ সকল প্রতিষ্ঠান ও জাতীয় পর্যায়ের প্রতিষ্ঠানের কয়েকটি এই চাকরি মেলা থেকে তাদের কর্মী নিয়োগের কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য এই মেলার আয়োজন করা হয়েছে। এদিকে, চাকরি মেলা উপলক্ষে আশপাশের জেলাগুলোর বিপুল সংখ্যক তরুণ-তরুণী আসায় গোটা যশোর শহরে জ্যাম লেগে যায়। সকাল দশটার পর থেকে কার্যত যশোর শহর স্থবির হয়ে যায়। কম্পিউটারের দোকানগুলোতে সিভি তৈরির হিড়িক পড়ে যায়। মেলায় স্টল ছিল ৩০টি প্রতিষ্ঠানের। আরকে/ডব্লিউএন

চুয়াডাঙ্গায় পাহারাদারকে কুপিয়ে হত্যা

চুয়াডাঙ্গায় রিপন সরকার (২৭) নামে এক পাহারাদারকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। রিপন সদর উপজেলার খাসপাড়া গ্রামে মোতালেব সরকারের ছেলে। জানা গেছে, রোববার রাতে পুকুর পাহারা দিয়ে বাড়ি ফেরার সময় দুর্বৃত্তরা তাকে তুলে নিয়ে যায়। পরে তারা তাকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ওসি তোজাম্মেল হক গণমাধ্যমকে জানান, এদিন দিবাগত রাতে খাসপাড়া গ্রামের মোস্তফা মন্ডলের পুকুর পাহারা শেষে রিপন বাড়ি ফেরার পথে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা তাকে হত্যা করে। পরে একটি পুকুরে জাগ (পঁচানো) দেওয়া পাটের নিচে তার লাশ চাপা দিয়ে রাখে দুর্বৃত্তরা। রাতে বাড়ি না ফেরায় সোমবার সকালে খোঁজাখুজির এক পর্যায়ে পুকুরের পানিতে তার লাশ দেখতে পায় এলাকাবাসী। ওসি জানান, রিপনকে কারা এবং কেন হত্যা করেছে তা উৎঘাটনের চেষ্টা চলছে। /আর/এআর

বিয়ের অনুমতি না পেয়ে স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যা!

সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা থানার বাগমারা গ্রামে মুন্নী আক্তার নামের এক গৃহবধূকে শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ পেয়েছে পুলিশ। আজ রোববার সকালে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনায় নেওয়ার পথে মুন্নী আক্তার মারা যান। পুলিশের বক্তব্য, দ্বিতীয় বিয়ের অনুমতি না দেওয়ায় মুন্নী আক্তারকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মারেন তাঁর স্বামী মুসা গাজী। ঘটনার পর থেকেই পলাতক রয়েছেন তিনি। পাটকেলঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা জাকির হোসেন স্থানীয়দের বরাত দিয়ে গণমাধ্যমকে জানান, গত পাঁচ মাস আগে মুন্নী আক্তার একটি ছেলে সন্তানের জন্ম দেন। সন্তান হওয়ার পর থেকে মুসা গাজী দ্বিতীয় বিয়ে করার জন্য স্ত্রীর কাছে অনুমতি চান। কিন্তু তিনি অনুমতি না দেওয়ায় তাদের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়। এ কারণে মুসা প্রায়ই স্ত্রীকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করতেন। অনেক রাতে স্ত্রীকে জোর করে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে বাইরে চলে যেতেন। ওসি আরো জানান, গতকাল শনিবার রাতে ঘুমন্ত মুন্নীর শরীরে কেরোসিন ছিটিয়ে আগুন ধরিয়ে দেন মুসা। এর পর তিনি নিজেই আবার স্ত্রীর শরীরের আগুন নেভাতে গিয়ে কিছুটা দগ্ধ হন। পরে দগ্ধ মুন্নী ও মুসাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মুন্নীর অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে খুলনায় পাঠানো হয়। যাওয়ার পথে ডুমুরিয়া উপজেলার চুপনগরে তিনি মারা যান। সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) ফরহাদ জামিল বলেন,‘মুন্নির দেহের ৮০ শতাংশ পুড়ে যাওয়ায় তিনি মারা গেছেন।’ সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার আলতাফ হোসেন বলেন, খুলনায় নেওয়ার পথে মারা যান মুন্নী আক্তার। তাঁর লাশ বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ঘটনরা পর তাঁর স্বামী সদর হাসপাতাল থেকে পালিয়ে গেছে। তাঁকে আটকের চেষ্টা চলছে। কেআই/ডব্লিউএন

কুষ্টিয়ায় বাস পুকুরে পড়ে আহত ১৭

কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার বাটিকামারা এলাকায় একটি যাত্রীবাহী বাস সড়কের পাশে পুকুরে পড়ে যাওয়ার ঘটনায় কমপক্ষে ১৭ জন আহত হয়েছেন। কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী সড়কের কুমারখালীর বাটিকামারা সরকারি মৎস্য হ্যাচারির সামনে আজ শনিবার বেলা আড়াইটার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে বাসটির ১৭ জন যাত্রী আহত হন। তাঁরা হলেন মনির হোসেন (২৫), আমানত আলী (৫০), আলম হোসেন (২৮), ফরিদা খাতুন (৩০), আবদুর রহমান (৬০), সাইদুল ইসলাম (৩৫), গোলাম নবী (৫০), মাহমুদুল কবির (৩০), তরুন (৪৫), সিরাজুল ইসলাম (৩০), রাব্বি (৭), মেরিনা খাতুন (৩০), আবদুল কাদের (২৮), পলাশ (২৫), রফিকুল ইসলাম (১৮), মিঠুন (৪২) ও তাজেম আলী (৩৫)। আহতদের উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল ও কুমারখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, যাত্রীবাহী ওই বাসটি স্বাভাবিক গতিতেই কুষ্টিয়ার দিকে যাচ্ছিল। মৎস্য হ্যাচারির সামনে পৌঁছার পর বিকট শব্দ হয়ে সামনের একটি চাকা ফেটে গেলে বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে সড়কের পাশের পুকুরের পানিতে পড়ে যায়। কুমারখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, আহত ১৭ জনকে ওই হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে গুরুতর আহত তিনজনকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল খালেক বলেন, ঘটনার পরপরই ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। বাসটি উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

কুষ্টিয়ায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১

কুষ্টিয়ার পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক যুবক নিহত হয়েছেন। নিহত যুবকের নাম টেনি (২৭)। পুলিশের দাবি টেনি একজন দুর্ধর্ষ সস্ত্রাসী। মঙ্গলবার ভোর পৌনে ৪টার দিকে কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার পিপুলবাড়িয়া-বালিয়াডাঙ্গা মাঠের মধ্যে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ১টি বিদেশি পিস্তুল, ১টি ম্যাগজিন ও ২ রাউন্ড পিস্তলের গুলি উদ্ধার করেছে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নিহত টেনি উপজেলার আড়িয়া ইউয়িনের ছাতারডাড়া গ্রামের আলম মন্ডলের ছেলে। তার বিরুদ্ধে হত্যাসহ একাধিক মামলা রয়েছে। দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ দারা থান গণমাধ্যমকে বলেন, একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী দৌলতপুর-কাতলামারী সড়কের পিপুলবাড়িয়া-বালিয়াডাঙ্গা মাঠের মধ্যে অবস্থান করছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে এসআই রহিমের নেতৃত্বে পুলিশের টহল দল সেখানে অভিযান চালায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে একপর্যায়ে সন্ত্রাসীরা পিছু হটে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ একজনকে উদ্ধার করে দৌলতপুর হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে টেনির পরিবারের লোকজন ও স্থানীয়রা তাকে শনাক্ত করেন। তিনি বলেন, উভয় পক্ষের ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৩ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে ১টি বিদেশি পিস্তল, ম্যাগজিন ও গুলি উদ্ধার হয়েছে।   /আর/এআর

যশোরে ছুরিকাঘাতে আ`লীগ নেতা নিহত

যশোরে ঝিকরগাছায় দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে আওয়ামী লীগের এক নেতা নিহত হয়েছেন। রোববার রাতে দিকদানা মাঠে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সিদ্দিকুর রহমান (৪৫) ঝিকগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ সভাপতি। বাঁকড়া মহিলা কলেজের প্রভাষক জাহাঙ্গীর হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, রোববার রাত ৮টার দিকে দিকদানা মাঠের ভিতর দিয়ে যাওয়ার সময় আহত অবস্থায় সিদ্দিকুর রহমান দেখি। পরে তাকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক আ.ফ.ম বজলুর রশিদ টুলু জানান, চিকিৎসাধীন অবস্থায় সিদ্দিকুর মারা যান। তার শরীরের একাধিকস্থানে ছুরির আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ঝিকরগাছার বাঁকড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পরিদর্শক সিকদার মতিয়ার রহমান জানান, সিদ্দিকুর রহমান রোববার সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বাঁকড়া বাজারের উদ্দেশ্যে রওনা হন। পথে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা তাকে কুপিয়ে আহত করে ফেলে রাখে। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে যশোর সদর হাসপাতালে নিলে তার মৃত্যু হয়। বিষয়টি তদন্ত করে প্রকৃত ঘটনা জানার চেষ্টা চলছে।   /আর/এআর

খামারে ব্যবসায়ী দুই বন্ধুর লাশ

মাগুরায় পোলট্রি খামার থেকে দুই ব্যবসায়ী বন্ধুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে তাঁদের মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করছেন চিকিৎসকরা। মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইলিয়াস হোসেন গণমাধ্যমকে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। দুই ব্যবসায়ী হলেন মাগুরা সদর উপজেলার সাজিয়াড়া গ্রামের টিটুল কাজী (৩০) ও দারিয়াপুর গ্রামের মো. হাসান (২৮)। সাজিয়াড়া গ্রামের বাসিন্দা ইমরান হোসেন বলেন, টিটুল কাজী ও মো. হাসান দুজন ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিলেন। সাজিয়াড়ায় টিটুল কাজীর ও দারিয়াপুরে মো. হাসানের পোলট্রির খামার আছে। বুধবার ভোর ছয়টার দিকে টিটুল কাজীর খামারে মুরগির খাবার দিতে গিয়ে এক কর্মচারী দেখেন, টিটুল কাজী ও মো. হাসান মৃত অবস্থায় খামারের ভেতর পড়ে আছেন।পরে সকাল পৌনে সাতটার দিকে টিটুল কাজীকে মাগুরা সদর হাসপাতালে আনা হলে চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। রাতে টিটুল কাজীর খামারে মো. হাসান বেড়াতে এসেছিলেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। মাগুরা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক রবিউল ইসলাম বলেন, সকালে টিটুল কাজীকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়। সম্ভবত বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে তাঁর মৃত্যু হয়েছে। বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে একটি হাতের কিছু জায়গা পুড়ে যাওয়ার চিহ্ন ছিল। আরকে//এআর

চুয়াডাঙ্গায় ঈদের নামাজকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, আহত ১৩

চুয়াডাঙ্গায় ঈদের নামাজ পড়াকে কেন্দ্র করে দুই দল গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষের ১৩ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে জয়নাল আবেদিন (৪০) নামে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। আজ শনিবার জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার হাপানিয়া গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন হাপানিয়া গ্রামের হাসান মিয়া (৩২), মিলন আলী (২২), মহিবুল ইসলাম (৩৮), সেলিম রেজা (৩২), আজিজুল হক (৫০), জয়নাল আবেদিন (৪০), মতিয়ার রহমান (৫০), আব্দুল গফুর (৩০), উসমান গণি (৪৫), আব্দুল কুদ্দুস (৪৫), মকলেছ মিয়া (২২), ঠান্ডু মিয়া (৩৮) ও মো. বুকল (৩৬)। চুয়াডাঙ্গার পুলিশ সুপার নিজাম উদ্দীন গণমাধ্যমকে জানান, ঈদগাহে নির্ধারিত সময় পেরিয়ে গেলেও নামাজ শুরু না হওয়ায় গ্রামের একটি অংশ প্রতবাদ করে। এ নিয়ে গ্রামের মুসল্লিরা দুভাগে বিভক্ত হয়ে এক পক্ষ নামাজ না পড়ে মাঠ ত্যাগ করেন। পরে নামাজ শেষে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে কমপক্ষে ১৩ জন আহত হন। আর/ডব্লিউএন

শিশু হত্যায় মাসহ চার জনের ফাঁসি

খুলনায় নয় বছরের শিশু হাসমি মিয়াকে হত্যার ঘটনায় তার মাসহ চারজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন খুলনার অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালত। মঙ্গলবার অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোসাম্মাৎ দিলরুবা সুলতানা আসামিদের উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন, হাসমির মা সোনিয়া আক্তার, মো. নুরুন্নবী, মো. রসুল ও মো. হাফিজুর রহমান। অপরাধে সংশ্লিষ্টতা প্রমাণিত না হওয়ায় অপর আসামি রাব্বি সরদারকে খালাস দিয়েছেন আদালত। উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ৯ জুন খুলনা নগরীর কার্ত্তিককুল এলাকা থেকে শিশু হাসমির বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে হাসমির বাবা মো. হাফিজুর রহমান বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার সূত্রে জানা যায়, নুরুন্নবীর সঙ্গে সোনিয়ার পরকীয়া প্রেমের জের ধরে মায়ের সামনেই জবাই করে হত্যা করা হয় শিশু হাসমিকে। পরে লাশ সিমেন্টের বস্তায় ভরে খুলনা বাইপাস সড়ক সংলগ্ন সরদার ডাঙ্গা বিলে ফেলে দেওয়া হয়। গ্রেপ্তার হওয়ার পর হাসমির মা সোনিয়া আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এসব তথ্য দেন।   আর/টিকে

কুষ্টিয়ায় বন্দুকযুদ্ধে সন্দেহভাজন জঙ্গি নিহত

কুষ্টিয়ায় বন্দুকযুদ্ধে নব্য জঙ্গিগোষ্ঠী জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) সন্দেহভাজন এক সদস্য নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে পুলিশ। এ ঘটনা চার পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার বোয়ালিয়া মাঠের তিন রাস্তার মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ একটি পিস্তল, দুটি গুলি, একটি ম্যাগাজিন ও তিনটি চাপাতি উদ্ধার করেছে। নিহত ব্যক্তির নাম আরমান আলী (৪২)। তিনি ভেড়ামারা উপজেলার ঠাকুর দৌলতপুর গ্রামের বাসিন্দা। আহত চার পুলিশ সদস্য হলেন—দৌলতপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শরিফুল, এসআই সুব্রত, কনস্টেবল সজীব ও নওশাদ। তাঁদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ দারা খানের ভাষ্য, আরমান নব্য জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশে সদস্য। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায়, একদল সন্ত্রাসী নাশকতার জন্য বোয়ালিয়া মাঠের বটতলায় বৈঠক করছে। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে অভিযান চালালে সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। তখন পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। উভয় পক্ষের বন্দুকযুদ্ধের একপর্যায়ে সন্ত্রাসীরা পিছু হটলে পরে ঘটনাস্থল থেকে নব্য জেএমবি সদস্য আরমান আলীকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পরে তাকে দৌলতপুর উপজেলা হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় পুলিশের চার সদস্য আহত হন। //আর//এআর

ইব্রাহিমের প্রথম ধাপের অস্ত্রোপচার সফল

টাকার অভাবে যখন বিনা চিকিৎসায় বাড়িতে শিশু ইব্রাহিমের মৃত্যুর প্রহর গুনছিল তার পরিবার। “সাতক্ষীরার আরও একটি শিশু বিরল রোগে আক্রান্ত”  সংবাদটি পত্র পত্রিকায়  প্রকাশ হওয়ার পর মিডিয়া পাড়ায়  তোলপাড় শুরু হয় শিশু ইব্রাহিমকে নিয়ে। সাতক্ষীরা সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবু ইব্রাহিমকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা করেন। তবে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের চিকিৎসক শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. শামসুর রহমান জানিয়ে দেন শিশুটির চিকিৎসা এখানে সম্ভব নয়। শিশুটি চিরোনিক গ্রানুলোমেটাস রোগে আক্রান্ত। তিনি ব্যক্তিগত তহবিল থেকে দশ হাজার টাকা সহায়তা দেন শিশু ইব্রাহিমের চিকিৎসার জন্য। পরবর্তীতে তারই আহ্বানে সাড়া দিয়ে চট্টগ্রামের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সিভিও পেট্রোক্যামিক্যাল রিফাইনারী লিমিটেডের চেয়ারম্যান শামসুল আলামীন শিশুটির চিকিৎসার জন্য ৫০ হাজার টাকা সহায়তা পাঠান। পরবর্তীতে এএসপি মেরিনা আক্তারের আহ্বানে সাড়া দিয়ে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার শিক্ষক সমিতির নেতারা ১০ হাজার টাকা সহায়তা প্রদান করেন শিশুটির চিকিৎসা সেবায়। সেসব সহায়তার টাকায় গত ৩১ জুলাই শিশু ইব্রাহিমকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটের ৬২২ নম্বর বেডে ভর্তি করা হয়। সেখানে অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর আজ শনিবার সকালে শিশু ইব্রাহিমের প্রথম ধাপের অপারেশন সফল হয়েছে। তার অণ্ডকোষসহ আশেপাশে যে পচন ধরেছিলো সেগুলো অপসারণ করা হয়েছে। ইব্রাহিমের মামা মিনারুল ইসলাম এসব তথ্য গণমাধ্যমকে জানান, ডাক্তার জানিয়েছেন প্রথম ধাপের অপারেশন সফল হয়েছে। পরবর্তীতে বায়োপসি করা হবে। এরপর দ্বিতীয় ধাপের অপারেশন করা হবে। বর্তমানে শিশু ইব্রাহিম সুস্থ রয়েছে। শরীরে দীর্ঘ ৬ মাস থাকা জ্বরটা এখন নেই। জ্বালা যন্ত্রণাও কমে গেছে। শিশু ইব্রাহিম ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটের প্রধান ডা. সামন্ত লাল সেনের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন রয়েছে। কেআই/ডব্লিউএন

সুন্দরবনে র‌্যাব-বনদস্যুদের গোলাগুলি, আটক ২

সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের আন্ধারমানিক খালে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নে (র‌্যাব) সদস্যদের সঙ্গে বনদস্যুদের গোলাগুলি চলছে। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে র‌্যাব-৮-এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আনোয়ারুজ্জামান গণমাধ্যমকে বিষয়টি জানিয়েছেন। এ সময় দুজনকে আটক করা হয়েছে। উদ্ধার করা হয়েছে বেশ কিছু অস্ত্র। আনোয়ারুজ্জামান জানান, বৃহস্পতিবার সকাল থেকে এ অভিযান শুরু হয়েছে। আন্ধারমানিক এলাকায় এখনো অভিযান চলছে। মুক্তিপণের দাবিতে জেলে অপহরণের পর জিম্মিদের নিয়ে বনদস্যু সুমন বাহিনী পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের আন্ধারমানিক খালে অবস্থান করছে—এমন খবরের ভিত্তিতেই অভিযান চালান র‌্যাব সদস্যরা। র‍্যাব অধিনায়ক জানান, খালের মধ্যে ওত পেতে থাকা দস্যুরা র‌্যাব সদস্যদের দেখামাত্র গুলি ছুড়তে থাকে। তখন র‍্যাবও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। উভয়ের মধ্যে ঘণ্টাব্যাপী থেমে থেমে গুলি চলে। এ সময় দুজনকে আটক করা হয়। তাদের মধ্যে একজন সুমন বাহিনীর দ্বিতীয় শীর্ষ নেতা। বাকিরা বনে পালিয়ে যায় বলেও জানান র‍্যাব কর্মকর্তা। তিনি আরো জানান, পরে ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে দেশি-বিদেশি আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। //এআর

ঘষিয়াখালী চ্যানেলে নৌ চলাচল শুরু

বাগেরহাটের রামপাল উপজেলায় ঘষিয়াখালী চ্যানেলে নৌ চলাচল শুরু হয়েছে। কালিগঞ্জ খেয়াঘাটে রোববার বিকালে শ্রমিকদের সঙ্গে উপজেলা প্রশাসনের বৈঠকে শ্রমিকরা চ্যানেল খুলে দিতে রাজি হয়। প্রসঙ্গত, কার্গো শ্রমিকদের ওপর ড্রেজার শ্রমিকদের হামলার পর শনিবার থেকে শ্রমিকরা বন্ধ করে দেয় ঘষিয়াখালী চ্যানেল। রামপাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তুষার কুমার পাল গণমাধ্যমকে বলেন, বৈঠকে ড্রেজার কর্তৃপক্ষ দুঃখ প্রকাশ করেছে। নৌযান ভাংচুর ও শ্রমিকদের মারধরের ক্ষতিপূরণ বাবদ এক লাখ টাকা পরিশোধ করার পর সন্ধ্যায় চ্যানেলে নৌচলাচল স্বাভাবিক হয়। তিনি বলেন, ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের ঘটনা না ঘটে সেজন্য সবাইকে সতর্ক করা হয়েছে।   //আর//এআর

ঝিনাইদহে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

ঝিনাইদহ শহরে দিনের বেলা এক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। রোববার বেলা ১২টার দিকে শহরের টানপাড়া এলাকায় এ হত্যাকাণ্ড ঘটে বলে জানা গেছে। জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ আকবর আলী গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। নিহত ফিরোজ হোসেন (৩০) ছিলেন ঝিনাইদহ পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সাংগঠনিক সম্পাদক। তিনি টানপাড়া এলাকার আনছার আলীর ছেলে। পুলিশ কর্মকর্তা আকবর আলী সাংবাদিকদের বলেন, রোববার বেলা ১২টার দিকে তিনি বাড়ি থেকে বের হয়ে মোটরসাইকেলে করে শহরের দিকে যাচ্ছিলেন। পথে পাঁচ-ছয়জন তাকে কুপিয়ে জখম করে চলে যায়। স্থানীয়রা তাকে সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।//এআর

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি