ঢাকা, মঙ্গলবার   ০৯ মার্চ ২০২১, || ফাল্গুন ২৪ ১৪২৭

এবার বিয়ের প্রলোভনে এক মাসে পাঁচবার ধর্ষণ

নোয়াখালী প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৯:৪০, ৭ অক্টোবর ২০২০

এক গৃহবধূ নির্যাতনের খবরে যখন সারাদেশে চলছে প্রতিবাদ নিন্দা ঘৃণার ঝড়, ঠিক তখনই সেই নোয়াখালীতেই এবার সপ্তম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক মাসে পাঁচবার ধর্ষণ করে সবকিছু অস্বীকার করছে জসীম উদ্দিন (২২ নামে এক যুবক। সদর উপজেলার এওজবালিয়া ইউনিয়নের পূর্ব এওজবালিয়া গ্রামের এ ঘটনায় আজ বুধবার বিকেলে সুধারাম মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেন নির্যাতিত ওই কিশোরী নিজেই।

মামলার এজাহারে জানা যায়- পূর্ব এওজবালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ওই ছাত্রীকে পার্শ্ববর্তী বাড়ির মৃত বাবুল মিয়ার ছেলে জসীম উদ্দিন (২২) প্রেম নিবেদন করতো। কিশোরী তাতে সম্মত না হওয়ায় জসীম হুমকি-ধমকি দিতো এবং তাকে বিয়ে করবে এমন আশ্বাস দিয়ে এক মাস পূর্বে কিশোরীদের বাড়ির পেছনের বাগানে নিয়ে ধর্ষণ করে। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই মাসে তাকে চারবার ধর্ষণ করে জসীম এবং সর্বশেষ ১৫ সেপ্টেম্বরও তাকে বিয়ে করবে আশ্বাস দিয়ে আরও একবার ধর্ষণ করে। কিন্তু এখন অভিযুক্ত জসীম বিয়ে করার আশ্বাস এবং ধর্ষণ উভয় বিষয়ই অস্বীকার করছে।

ভুক্তভোগী কিশোরীর মা হোসনে আরা বেগম বলেন, আমি চট্টগ্রামে থাকি। জসীম সবসময় আমার মেয়েকে স্কুলে যাওয়া-আসার পথে উত্ত্যক্ত করতো, ভয়-ভীতি দেখাতো। স্কুল থেকে ফিরে মেয়ে আমার কাউকে কিছু বলতো না। গতকাল আমি চট্টগ্রাম থেকে আসার পর রাতে আমার মেয়েকে বাইরে নেবার জন্য আসে জসীম। এসময় সব কথা মেয়ে আমাকে খুলে বলে। ওই ছেলে এখন বিয়ে করবে না বলে জানায়। আমি এলাকাবাসীকে বিষয়টি অবহিত করলে তারা থানায় মামলা করার পরামর্শ দেন। 

সুধারাম মডেল থানার ওসি নবীর হোসেন জানান, মামলা গ্রহণ করা হয়েছে এবং এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

এনএস/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি