ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৯ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ৬ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

এবার ফিক্সিংকাণ্ডে ৫ ভারতীয় ক্রিকেটার গ্রেপ্তার

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৮:৪৯ ৭ নভেম্বর ২০১৯

গৌতম ও আবরার

গৌতম ও আবরার

ক্রিকেট জুয়াড়িদের স্বর্গরাজ্য হয়ে উঠেছে ভারত। দেশটিতে জুয়া নিষিদ্ধ হলেও ক্রিকেট জুয়াড়িদের ঠেকানো যাচ্ছে না। তাই আবারও ঘটল স্পট ফিক্সিংয়ের ঘটনা। এবার কর্ণাটক প্রিমিয়ার লীগে (কেপিএল) স্পট ফিক্সিংয়ের সুনির্দিষ্ট অভিযোগে চার ক্রিকেটারসহ মোট ৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। 

আজ বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) সেন্ট্রাল ক্রাইম ব্রাঞ্চ অফ ব্যাঙ্গালুরু কর্ণাটক প্রিমিয়ার লীগের ফাইনাল ম্যাচে ২০ লাখ টাকা নিয়ে স্লো ব্যাটিং করার অভিযোগে সিএম গৌতম ও আবরার কাজীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। সিএম গৌতম ও আবরার কাজী বেলারি টাস্কার্সের হয়ে খেলতেন। 

এর আগে ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে যুক্ত হওয়ার অভিযোগে গত ২৬ অক্টোবর গ্রেপ্তার হয়েছিলেন বেঙ্গালুরু ব্লাস্টার্সের বোলিং কোচ ভিনু প্রসাদ ও ব্যাটসম্যান বিশ্বনাথন। 

একইসঙ্গে গ্রেপ্তার হয়েছেন বুকিদের সঙ্গে ক্রিকেটারদের যোগাযোগ করিয়ে দেয়া নিশান্ত সিং শেখাওয়াত নামে একজন। অন্যদিকে এখনও পুলিশি হেফাজতে আছেন বেলগাভি প্যান্থার্স দলের মালিক আলী আশফাক। দলটিকে ইতোমধ্যে কর্ণাটক প্রিমিয়ার লীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

জাতীয় দলের খেয়ে খেলার সুযোগ না পেলেও ভারতীয় ক্রিকেটের খুবই পরিচিত মুখ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান গৌতম। ভারতীয় ‘এ’ দলের হয়ে খেলেছেন তিনি। আইপিএলের রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স, দিল্লি ডেয়ার ডেভিলসের মতো দলের হয়েও মাঠে নেমেছেন গৌতম। একইসঙ্গে কর্নাটক রাজ্য দলের হয়ে খেলেছেন সব ধরনের ক্রিকেট।

আগামীকাল (৮ নভেম্বর) থেকে শুরু হতে যাওয়া সৈয়দ মুস্তাক আলী টি-টোয়েন্টি ট্রফিতেও নিজ নিজ রাজ্য দলের হয়ে খেলার কথা ছিল সিএম গৌতম ও আবরার কাজীর। গৌতম কর্ণাটক এবং আবরার মনিপুরের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করার কথা থাকলেও এখন তাদের ঠিকানা জেলখানা।

এ বিষয়ে পুলিশের অ্যাডিশনাল কমিশনার সন্দীপ পাতিল বলেন, কেপিএলে ফিক্সিংয়ের সঙ্গে সম্পর্ক থাকার কারণে আমরা দুজন ক্রিকেটারকে গ্রেপ্তার করেছি। এর আগে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল আরও তিন জনকে।  

এনএস/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি