ঢাকা, সোমবার   ০৮ আগস্ট ২০২২

কাইয়া-রাজার জোড়া শতকেই হার দেখল বাংলাদেশ

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২১:৩৫, ৫ আগস্ট ২০২২ | আপডেট: ২১:৪৪, ৫ আগস্ট ২০২২

দুই সেঞ্চুরিম্যান সিকান্দার রাজা ও ইনোসেন্ট কাইয়া

দুই সেঞ্চুরিম্যান সিকান্দার রাজা ও ইনোসেন্ট কাইয়া

তামিম-লিটন-বিজয়-মুশফিকের চার ফিফটিতে জিম্বাবুয়েকে ৩০৪ রানের লক্ষ্য দেয় বাংলাদেশ। জবাব দিতে নেমে মুস্তাফিজ-শরিফুলের তোপের মুখে মাত্র ৬ রানেই দুই উইকেট হারালেও টাইগার বোলারদের চোখ রাঙানি উপেক্ষা করে সেঞ্চুরি তুলে নেন কাইয়া ও রাজা। 

তাদের ১৯২ রানের রেকর্ড গড়া জুটিতেই মূলত ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় বাংলাদেশ। হেরে যায় ৫ উইকেটের বড় ব্যবধানে।

এর ফলে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টানা ২০ ম্যাচে জেতা হল না টাইগারদের। অর্থাৎ দলটির কাছে ১৯ ম্যাচ পর ফের আরেকবার হারের মুখ দেখল তামিমের দল।

জয়ের পথ দেখিয়ে যাওয়া কাইয়া আউট হলেও সিকান্দার রাজা ও লুক জংওয়ে মিলে খেলা শেষের দিকে নিয়ে যায় অনায়াসেই। তবে ৪৮তম ওভারের প্রথম বলে মিরাজ জংওয়েকে আফিফের ক্যাচ বানিয়ে ফেরালে ভাঙ্গে এই জুটি। যদিও তাতে কিছুই এসে যায়নি জিম্বাবুয়ের। কারণ, ৪৯তম ওভার করতে আসা মোসাদ্দেককে ছক্কা মেরেই খেলা শেষ করেন সিকান্দার রাজা, ১০ বল হাতে রেখেই।

দুটি চার ও একটি ছয়ের মারে ১৯ বল থেকে ২৪ রান করেন জংওয়ে। অন্যদিকে, ক্যারিয়ারের চতুর্থ শতক হাঁকানো সিকান্দার রাজা অপরাজিত থাকেন ১৩৫ রানে। ৩৬ বছর বয়সী ব্যাটিং অলরাউন্ডারের ১০৯ বলের দুর্দান্ত এই ম্যাচজয়ী ইনিংসে ছিল ৮টি চারের সঙ্গে ৬টি বিশাল ছয়ের মার।

ম্যাচজয়ী ১৩৫ রানের অজেয় ইনিংস খেলার পর রাজার উদযাপন

এর আগে ১১০ রানের ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস খেলে মোসাদ্দকের শিকার হন মাত্র চতুর্থ ম্যাচ খেলতে নামা ইনোসেন্ট কাইয়া। তার ১২২ বলের এই ইনিংসে ছিল ১১টি চার ও দুটি ছক্কার মার। আউট হওয়ার আগে রাজার সঙ্গে ১৭২ বলে গড়েন ১৯২ রানের এক অনবদ্য জুটি। 

যে জুটির কারণেই মূলত ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় বাংলাদেশ। এক্ষেত্রে অবশ্য সফরকারী ফিল্ডারদের অবদানও কম নয়। তাদের অপ্রত্যাশিত হাত ফসকানো ফিল্ডিংয়ের সুযোগ নিয়েই শতরানের স্কোর করেন দুজনেই। 

এর আগে ওয়েসলি মাধেভেরের সঙ্গে ৫৬ রানের ঘুরে দাঁড়ানো জুটি গড়েন কাইয়া। ইনিংসের ১৪তম ওভারের প্রথম বলে মাধেভেরে রান আউটের শিকার হলে ভাঙ্গে এই জুটি। ১৯ রানে ফেরেন ওয়েসলি। যাতে দলীয় ৬২ রানে তৃতীয় উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে।

এর আগে জিম্বাবুয়ে শিবিরে প্রথম আঘাত হানেন টাইগার পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। তার শিকারে পরিণত হয়ে ফিরে গেছেন ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক রেজিস চাকাভা। ৬ বলে মাত্র ২ রান করেন জিম্বাবুয়ের এই ওপেনার। ফিজের পর বোলিংয়ে এসে উইকেট নেন শরিফুল ইসলামও।

শরিফুলের শিকার হন তিনে নামা তারিসাই মুসাকান্দা। এক বাউণ্ডারি হাঁকিয়েই ফিরতে হয় পাঁচ বল খেলা ডানহাতি এই ব্যাটারকে। 

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে চার টপ অর্ডারের চার ফিফটিতে চড়ে মাত্র ২টি উইকেট হারিয়ে ৩০৩ রানের সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ।

আগামী রোববার (৭ আগস্ট) একইমাঠে একই সময়ে গড়াবে দুই দলের মধ্যকার দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচ। আর তৃতীয় ও শেষ ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে ১০ আগস্ট।

এনএস//


Ekushey Television Ltd.

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি