ঢাকা, বুধবার   ১৯ জানুয়ারি ২০২২, || মাঘ ৫ ১৪২৮

হত্যার হুমকিতে থানায় অভিযোগ দিলেন কঙ্গনা

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৭:০৫, ৩০ নভেম্বর ২০২১ | আপডেট : ১৭:০৭, ৩০ নভেম্বর ২০২১

বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত

বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত

নেটমাধ্যমে বিতর্কিত মন্তব্য করে হরহামেশাই আলোচনায় থাকেন তিনি। তবে এবার একটু ভিন্নভাবেই আলোচনায় বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। হত্যার হুমকি পেয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন এই অভিনেত্রী।

জানা যায়, দিল্লি শিখ গুরুদ্বার ম্যানেজমেন্ট কমিটির (ডিএসজিএমসি) প্রেসিডেন্ট মনজিন্দার সিং সির্সা ও শিখ সম্প্রদায়ের কয়েকজন সদস্য মিলে অভিযোগ (এফআইআর) দায়ের করেছিলেন অভিনেত্রীর নামে। গত ২১ নভেম্বর কঙ্গনা নিজের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে একটি স্টোরি শেয়ার করেন। তার ভিত্তিতেই ছিল এই অভিযোগ।

মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) পাঞ্জাবের অমৃতসরের স্বর্ণমন্দিরে মা আশা রানাউত ও দিদি রঙ্গোলি চান্দেলের সঙ্গে একটি ছবি সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করেন কঙ্গনা। ছবিতে কঙ্গনাকে মাথায় তাঁর ওড়না দেয়া হালকা নীল রঙের পোশাক পরিহিত দেখা যাচ্ছে। ছবির সঙ্গে দীর্ঘ পোস্টে ঘটনার বিবরণ দিয়েছেন কঙ্গনা। 

যাতে, কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীকে নিশানা করেছেন তিনি। হুমকি দেয়ার জন্য অন্তর্বর্তীকালীন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী এবং পাঞ্জাব সরকারকে পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করার আবেদন করেছেন কঙ্গনা।

থালাইভি খ্যাত এই অভিনেত্রী বলেন, ‘আমার এই পোস্টে আমি প্রতিনিয়ত বিঘ্নকারী শক্তির কাছ থেকে হুমকি পাচ্ছি। বাথিন্ডার এক ভাই প্রকাশ্যে আমাকে হত্যার হুমকি দিয়েছেন। এই ধরনের হুমকিতে আমি ভয় পাই না। যারা দেশ ও সন্ত্রাসী শক্তির হয়ে ষড়যন্ত্র করে তাদের বিরুদ্ধে কথা বলি এবং সবসময় বলব।’ 

যদিও এখন নিজেই এফআইআর দায়ের করেছেন কুইন খ্যাত এই অভিনেত্রী। কারণ, তিনি মৃত্যুর হুমকি পাচ্ছেন- এমনটাই জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরে গুরু নানকের জন্মদিনে বিতর্কিত তিন কৃষি আইন প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্রীয় সরকার। এ নিয়ে গত ২১ নভেম্বর কঙ্গনা নিজের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে একটি স্টোরি শেয়ার করেছিলেন। তার ভিত্তিতেই, দিল্লি শিখ গুরুদ্বার ম্যানেজমেন্ট কমিটির প্রেসিডেন্ট মনজিন্দার সিং সির্সা ও শিখ সম্প্রদায়ের কয়েকজন সদস্য মিলে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন অভিনেত্রীর নামে। 

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কৃষি আইন প্রত্যাহার করে নেয়ার পরেই মূলত রুষ্ট হন এই অভিনেত্রী। আর তারপর সোজাসুজি আঘাত করেন কৃষক সম্প্রদায়কে। কৃষকদের প্রতিবাদকে ‘খলিস্তানি আন্দোলন’-এর আখ্যা দেন কঙ্গনা। প্রতিবাদী কৃষকদের ‘খলিস্তানি সন্ত্রাসবাদী’ বলেও আখ্যা দেন তিনি।

যার ফলে ভারতীয় আইনের ২৯৫-এ ধারায় কঙ্গনার বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছে এবং তদন্তও চলছে। তবে, এসব নিয়ে একেবারেই চিন্তিত নন ‘কুইন’। বিজেপি ঘনিষ্ঠ কঙ্গনার মতে, তিনি অপ্রিয় সত্য বলে থাকেন! আর তাই সবাই তাঁর নামে অভিযোগ করে সত্যিটা চাপা দেয়ার প্রচেষ্টা চালায়। সূত্র- হিন্দুস্তান টাইমস।

এনএস//


Ekushey Television Ltd.

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি